ফরিদ গাজী ছিলেন বাঙ্গালী ইতিহাসের অমৃতের সন্তান : নবীগঞ্জের পানিউমদাহ স্মরণসভায় বক্তারা

45

মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, সাবেক মন্ত্রী দেওয়ান ফরিদ গাজীর ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরই সভায় বক্তাগন দেওয়ান ফরিদ গাজীকে বাঙালী জাতির ইতিহাসের অমৃতের সন্তান উল্লে¬খ করে বলেন, ১৯৪২ সালে ছাত্রবস্থায় কুইট ইন্ডিয়া আন্দেলনের বৃটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে ভাষা আন্দোলন এদেশের মুক্তির লক্ষ্যে সকল লড়াই সংগ্রাম সর্বোপরি মহান মুক্তিযুদ্ধে দেওয়ান ফরিদ গাজীর সুদক্ষ নেতৃত্বে ও রণকৌশলের কারনেই বৃহত্তর সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় ত্বরান্বিত হয়েছিল। বক্তারা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে আওয়ামী রাজনীতির মাধ্যমে রাজনীতির পাঠশালায় প্রবেশের মাধ্যমে অভিষেক হয়েছিলো দেওয়ান ফরিদ গাজীর আর বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এদেশে ভোট ও ভাতের অধিকারসহ বাংলাদেশে গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্বের চেতনা পূনঃপ্রতিষ্টার সংগ্রামে বিজয় অর্জনের মধ্য দিয়ে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত আজীবন একজন সৎ, নির্লোভ, নিরহংকার, ত্যাগী ও আদর্শিক মুজিব সৈনিক হিসেবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বিশ্বস্তজন হিসেবে কাজ করে গেছেন, যা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সুদীর্ঘ বছরের গৌরবোজ্জল সংগ্রামী ইতিহাসে স্বর্ণালী অক্ষরে সমুজ্জল হয়ে লিখা থাকবে।
গত সোমবার বিকেলে নবীগঞ্জ উপজেলার পানিউমদা বাজারে সাবেক মন্ত্রী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য, সাবেক এম পি, মরহুম দেওয়ান ফরিদ গাজীর ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পানিউমদা ইউনিয়ন আওয়া মীলীগ, যুবলীগ,ছাত্রলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্দ্যোগে আয়োজিত বিশাল স্মরনসভায় বক্তাগন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
পানিউমদা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সাবেক ইউ/পি চেয়ারম্যান শাহ মো. ফিরুজ আলীর সভাপতিত্বে ও নবীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগ নেতা মো. অনু আহমদের সঞ্চালনায় এ স্মরনসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও দেওয়ান ফরিদ গাজী তনয় দেওয়ান শাহ নেওয়াজ মিলাদ গাজী। বিশেষ অতিথি ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি আব্দুল মুহিত চৌধুরী, যুগ্ম সসাধারণ সম্পাদক কাজী ওবায়দুল কাদের হেলাল,সিলেট জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান আমাতুজ জহুরা রওশন জেবীন রুবা, নবীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম, হবিগঞ্জ সদর উপজেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আব্দুল¬াহ সরদার, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন সাস্থ’্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. নাজরা চৌধুরী, নবীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক রাব্বি আহমেদ চৌধুরী মাক্কু, হবিগঞ্জ জেলা যুবলীগ সদস্য সৈয়দ শাহ দরাজ আলী। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন পানিউম্দা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মো. আনিছ মিয়া, মো. তাহির আলী, গোপাল রায়, আবুল কালাম মেম্বার,যথাক্রমে আব্দুল মুকিত, নানু মিয়া, মুজাহিদ আলী, শাহ শওকত মিয়া, সাংবাদিক মুজিবুর রহমান মুজিব, ফয়ছল আহমদ, তোরাব উল¬াহ,ফজল মিয়া, ইউপি সদস্য পারভীন আক্তার, হামিদা বেগম, যুবলীগ সভাপতি শামীম আহমদ, উপজেলা জেলা যুবলীগ নেতা খরসু আহমেদ সাজু, ৬নং কুর্শি ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক নেছার আহমদ জগলু, পৌর যুবলীগ নেতা দেওয়ান জাবেদ আহমদ, ইকবাল হোসেন, রোহেল আহমদ, অয়তুন মিয়া, আব্দুল কদ্দুছ, স্নানঘাট ইউনিয়ন বাহুবল যুবলীগ সভাপতি মোহাম্মদ আলী আমিনী, মুহিবুল হাসান মামুন, মকবুল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফেরদৌস আহমেদ রনি, মো. সামছুদ্দিন জনি, ছাত্রলীগ নেতা মাসুম আহমেদ, শাহ রাজন আহমেদ, মো. মজলু মিয়া, কামাল হোসেন, সোমায়েল মিয়া, খলিলুর রহমান চৌধুরী, রিপন সরকার, আব্দুল হালিম, কাওছার আহমদ, শাহ জুবেদ, আবিদ আহমেদ, জুনাইদ আহমেদ, রাজু আহমেদ, শাহ জুবেদ আহমদ, লিকন আহমেদ, লিটন দেব প্রমুখ।