তিন মাস সময় পাবেন শাকিব-অপু

28

বিনোদন ডেস্ক ::
শেষ পর্যন্ত ভেঙেই যাচ্ছে বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের সংসার। জানা গেছে, চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন দেশের শীর্ষ চিত্রনায়ক শাকিব খান।

গতকাল সোমবার গণমাধ্যমে খবর ছড়িয়ে পড়ে গত ৩০ নভেম্বর শাকিব ভারত যাওয়ার আগেই ডিভোর্স পেপারে স্বাক্ষর করেছেন। সেটা অপুর বাসার ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে। শাকিব খানের পক্ষে আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলামের অফিস থেকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মেয়র কার্যালয়, অপু বিশ্বাসের ঢাকার নিকেতনের বাসা এবং বগুড়ার ঠিকানায় এই তালাকের নোটিশ পাঠানো হয়।

এদিকে শাকিব-অপুর ভক্তদের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে তাদের কী তালাক কার্যকর হয়েছে কিনা। তাদের জন্য বলে রাখা দরকার এই তালাক কার্যকর হবে নোটিশ পাঠানোর তারিখ থেকে তিন মাস পর।

কারণ ১৯৭৪ সালের মুসলিম বিবাহ ও তালাক রেজিস্ট্রেশন আইন অনুযায়ী, তালাক দেয়ার পর সেই সংক্রান্ত নোটিশ স্বামীর মাধ্যমে স্ত্রীকে কিংবা স্ত্রীর মাধ্যমে স্বামীকে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ/পৌরসভা/সিটি কর্পোরেশনকে পাঠাতে হবে।

নোটিশ পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে চেয়ারম্যান বা মেয়র সালিসি পরিষদ গঠন করবেন এবং স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা করবেন। এজন্য সালিসি পরিষদ সময় পাবে ৯০ দিন। এর মধ্যে তারা প্রতি ৩০ দিনে একটি করে মোট তিনটি নোটিশ দেবে বর ও কনেকে। এই সময়ের মধ্যে স্বামী নোটিশ প্রত্যাহার না করলে ৯০ দিন পর তালাক কার্যকর হবে। কিন্তু নোটিশ প্রত্যাহার করলে তালাক আর কার্যকর হবে না। আইন অনুযায়ী, স্বামী বা স্ত্রী যে কাউকে তালাক দিতে পারবেন। তবে স্বামী একতরফাভাবে ইচ্ছেমতো তালাক দিতে পারেন।

ভারতের হায়দরাবাদের রামুজি ফিল্ম সিটিতে ‘নোলক’ নামের একটি ছবির শুটিং নিয়ে ব্যস্ত শাকিব খান। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়িকা ববি। ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে এই ছবির শুটিং। এরপর দেশে ফেরার কথা রয়েছে এই নায়কের।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে শাকিব-অপু বিয়ে করেন। তবে ক্যারিয়ারের কথা ভেবে সেটা লুকিয়ে রাখেন। গত বছর তাদের ঘরে এক পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। তার নাম আব্রাম খান জয়। পুত্রকে নিয়ে চলতি বছরের শুরুর দিকেই বিয়ের কথা প্রকাশ করেন অপু বিশ্বাস।