জেরুজালেম ইস্যুতে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক

15
Ambassadors to the UN vote during a United Nations Security Council meeting on North Korea in New York City, U.S., September 11, 2017. REUTERS/Stephanie Keith – RC1B857D8B60

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::
জেরুজালেম ইস্যুতে আগামীকাল শুক্রবার জরুরি অধিবেশনে বসতে চলেছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার প্রেক্ষিতে আট সদস্য দেশের অনুরোধে এই বৈঠকে সম্মত হয় পরিষদ। নিরাপত্তা পরিষদের মোট সদস্য সংখ্যা ১৫।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার উদ্যোগ নেয়ার পরই জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতারেসের কাছে জরুরি ভিত্তিতে অধিবেশন ডাকার অনুরোধ করেছিল ৮টি সদস্য দেশ ফ্রান্স, বলিভিয়া, মিশর, ইতালি, সেনেগাল, সুইডেন, যুক্তরাজ্য ও উরুগুয়ে।

এ প্রসঙ্গে সুইডেনের জাতিসংঘ দূত কার্ল স্কাউ বলেন, জাতিসংঘ জেরুজালেমকে একটি বিশেষ মর্যাদা এবং রাজনৈতিক অবস্থান দিয়েছে। জাতিসংঘের এই ঘোষনাকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সম্মান করা উচিত। এটি জানাতেই জরুরি ভিত্তিতে বিশেষ অধিবেশনের আয়োজন করছে নিরাপত্তা পরিষদ।’

গতবছর ডিসেম্বরে জাতিসংঘ নিরাপত্ত পরিষদে জেরুজালেমের ওপর একটি প্রস্তাব গ্রহীত হয়েছিলো। এতে বলা হয়েছে, ১৯৬৭ সালের ৪ জুনের অবস্থান থেকে জেরুজালেমের কোনো পরিবর্তন করা যাবে না। দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমেই কেবল পবিত্র এই নগরীর পরিবর্তন করা সম্ভব।’

তখন ১৪ ভোটে প্রস্তাবটি পাস হয়েছিল। যদিও পরিষদের একমাত্র সদস্য দেশ ভোটাভুটিতে অনুপস্থিত ছিল। আর সেই দেশ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। বন্ধু দেশ ইসরায়েলের তীব্র চাপ সত্ত্বেও এতে ভেটো দিতে সম্মত হননি তৎকালিীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।
এদিকে বুধবার ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলার পর জাতিসংঘ মহাসচিব সাংবাদিকদের বলেন,‘ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যকার শান্তির প্রক্রিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করে এমন একতরফা পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আমি কথা বলেছি।’

ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনি নেতাদের আলোচনায় ফেরাতে তিনি সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাবেন বলেও জানিয়েছেন।

সূত্র: আল আরাবিয়া