হাসলেন ও হাসালেন গেইল

32

স্পোর্টস ডেস্ক ::
বিপিএলের ফাইনালটা যেন গেইলের রূপকথার গল্পই হয়ে থাকল। এই আসরেই দুটি সেঞ্চুরি করেছেন ক্যারিবীয় এই ব্যাটিং দানব। ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে ১৮টি ছক্কায় গড়েছেন রেকর্ড। বিপিএলের সর্বোচ্চ রানও এখন তার। নান্দনিক ব্যাটিংয়ের পর সংবাদ সম্মেলনেও বিনোদন দিলেন সবাইকে।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে গেইলের কাছে প্রশ্ন ছিল—আপনাকে বলা যায় টি-টোয়েন্টির ব্র্যাডম্যান। আপনি নিজেও কি নিজেকে টি-টোয়েন্টির সেরা ব্যাটসম্যান বা সেরা ক্রিকেটার মনে করেন? গেইলের জবাব, আমি সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার। উত্তর দিয়ে নিজেও হাসলেন, হাসালেন উপস্থিত সংবাদকর্মীদেরও।

এই ফরম্যাটে ২০ সেঞ্চুরি ও ৬৭ হাফসেঞ্চুরিতে তার রান ১১ হাজার ৫৬। তবে এখানেই থামতে চান না। তিনি বলেন, ১১ হাজার রান আমার জন্য দারুণ অর্জন। আমার বয়স এখন ৩৮। আমি যতদিন সম্ভব, সমর্থকদের এভাবেই বিনোদন দিয়ে যাব। আরও যতটা সম্ভব আমি ম্যাচ জিততে চাই, শিরোপা জিততে চাই।

গতকাল অপরাজিত ১৪৬ রান করে দলকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন। তবে ভুলতে পারেননি আইপিএলে খেলা সেরা ইনিংসকে। কোন ইনিংসটা আপনার কাছে সেরা, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আইপিএলে ১৭৫ রানের ইনিংসটাই আমার টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের সেরা। তবে এই ইনিংসটি আমার জন্য বিশেষ কিছু। সেরা পাঁচের মধ্যে তো অবশ্যই থাকবে।

বিপিএলে এবার রংপুরে কাটানো সময়টাকে তিনি দুর্দান্ত উপভোগ করছেন। বিপিএলে ব্যাটিং দিয়ে ফের বিনোদন দিতে চান দর্শকদের। তিনি বলেন, রংপুরে দারুণ সময় কাটিয়েছি। এই মুহূর্তে আমরা শিরোপা জেতার আনন্দে মাতোয়ারা। সবাই মিলে শিরোপা জয়ের উৎসবতো করবোই। আমাকে এবার টি১০ লিগ টানছে। কিছুদিনের মধ্যে আমাকে সেখানে যেতে হবে। আশা করি আগামী মৌসুমে আবারও ফিরে আসব সবাইকে বিনোদন দিতে।

ব্যাট হাতে রংপুরের শিরোপা জয়ের নায়ক হলেও অধিনায়ক মাশরাফিকে বিশেষ কৃতিত্ব দেন ক্যারিবীয় এই ব্যাটিং দানব। তিনি বলেন, মাশরাফি দলকে দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছে। মাশরাফি ভালো একজন নেতা। তার অভিজ্ঞতাই তাকে এগিয়ে রেখেছে। সবচেয়ে বড় কথা, সে ঠাণ্ডা মাথার। সে আমার ও ম্যাককালামের ওপর থেকে চাপ কমিয়ে দিয়েছে।