হাউজিং এস্টেট এসোসিয়েশনের পিঠা উৎসব সম্পন্ন

37

সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধ আমাদের জীবনের সবচেয়ে বড়ো ঘটনা এবং ডিসেম্বর সেই যুদ্ধের মহান বিজয়ের মাস। বিজয়ের সেই মাসে পিঠা উৎসব করায় আমার খুব ভালো লাগছে। শীতে পিঠা খাওয়া আমাদের ঐতিহ্যেরই একটি অংশ। আমাদের নুতন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরতে হবে।
নগরীর হাউজিং এস্টেট এসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত পিঠা উৎসব ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় হাউজিং এস্টেট কমিউনিটি হলে এ পিঠা উৎসব ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। হাউজিং এস্টেট এসোসিয়েশনের সভাপতি মতিউস সামাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, দৈনিক শুভ প্রতিদিনের সম্পাদক ও প্রকাশক সরওয়ার হোসেন। আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফুয়াদ রব চৌধুরী শামীম।
পরিবেশবাদী আব্দুল করিম কিমের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম খাঁন, ডা. আজিজুর রহমান, মাসুদ আহমদ চৌধুরী, আব্দুর রহমান, আব্দুল হান্নান চৌধুরী, হাজী শফিক উদ্দীন আহমদ, হাজী চেরাগ উদ্দীন, হাজী জাহির আলী, এম.এ বকর, আব্দুল মালিক, আফছার আহমদ চৌধুরী, আব্দুর রহিম, আব্দুল ওয়াদুদ, সৈয়দ বজলুল রহমান, সৈয়দ এমদাদুর রহমান, ওলায়েত হোসেন লিটন, মাওলানা জাকারিয়া আহমদ, সোহাদ রব চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।
সভায় বক্তব্যকালে লুৎফুর রহমান আরো বলেন, সিলেট শহরের অত্যন্ত সুন্দর আবাসিক এলাকা হলো হাউজিং এস্টেট। জেলা পরিষদের আওতাভুক্ত এ আবাসিক এলাকার সৌন্দর্য্যবর্ধনের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। বিশেষ করে পবিত্র রমজান মাসে মহিলারা হাউজিং এস্টেট কমিউনিটি হলে তারাবিহ নামাজ পড়েন। সেজন্য এই কমিউনিটি হলের ভবন সম্প্রসারণ প্রয়োজন। আগামী রমজান মাসের আগেই আমি ভবন সম্প্রসারণের চেষ্টা করব।-বিজ্ঞপ্তি