চিনা সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্যে তৈরি হওয়ার নির্দেশ

74

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
মৃত্যুকে ভয় পায় না চিনা সেনারা৷ শত্রুপক্ষের সঙ্গে লড়াই করে দেশকে রক্ষার জন্য প্রস্তুত তারা৷ সম্প্রতি চিনা প্রেসিডেন্ট জিনপিং দেশের সেনাবাহিনীর ভূমিকা নিয়ে মুখ খুললেন৷ বলেন, যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত রয়েছে চিনা সেনা৷

গতকালই সীমান্ত পেরিয়ে চিনের রাস্তা নির্মাণকারী কর্মীরা ভারতে প্রবেশ করে৷ প্রথমে বিষয়টিকে অনুপ্রবেশ না বলা হলেও৷ পরে স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ইচ্ছেকৃতভাবেই সীমান্তে রাস্তা তৈরির জন্যই সীমান্তের একটি গ্রামে প্রবেশ করেছে চিনা সেনারা৷ সেটি নিয়েই ফের এই দুই দেশের মধ্যেকার পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে৷ এরপরই নড়েচড়ে বসে চিনও৷ যেকোনো মুহূর্তে ভারতের আঘাতকে যাতে প্রতিহত করতে পারে চিন৷ সেই কারণেই সেনাবাহিনীকে ঢালাওভাবে সাজাতে চলেছে চিন৷ এমনকি সেনাবাহিনীর ক্ষমতা পরখ করেও নিচ্ছে জিনপিং সরকার৷

চিনের সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, চিনের সেন্ট্রাল মিলিটারি কমিশনের চেয়ারম্যান জি৷ সেন্ট্রাল মিলিটারি কমিশনই দেশের সেনাবাহিনীকে নিয়ন্ত্রণ করে৷ সীমান্তে দাঁড়িয়ে ৭০০০ সেনাবাহিনীর সামনে সেনাদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ জি৷ পাশাপাশি তিনি চিনা সেনাদের উদ্দেশে নির্দেশ দিয়েছেন প্রশিক্ষণের উপর মনোযোগ দিতে৷ কারণ দেশের সাধারণ মানুষের রক্ষার দায়িত্ব রয়েছে এই সেনাবাহিনীর উপরেই৷ যেকোনো মুহূর্তে আক্রমণ করতে প্রস্তুত থাকতে পারে তারা৷ সেই কারণেই চিনা সেনাবাহিনীকে আগেভাগে সতর্ক করলেন জিনপিং৷

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই ডোকলাম সংলগ্ন সিকিমের আন্তর্জাতিক সীমান্তরেখা বরাবর এসএসবি কে আরও সক্রিয় করেছে ভারত৷ এসএসবি-র জন্য ইতিমধ্যে ৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে কেন্দ্র৷ ডোকলামের পাশাপাশি ভারত-ভুটান সীমান্তে ৬৯৯কিলোমিটার এলাকা জুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করেছে এসএসবি৷ পাশাপাশি ভারত-নেপাল সীমান্তের ১৭৫৮কিলোমিটারেও চালানো হচ্ছে বিশেষ নজরদারি৷ অনুপ্রবেশকারীদের রুখতে ভুটান ও নেপালের সীমান্ত বরাবর কিছু নির্দিষ্ট স্থানে জুড়ে থাকছে অত্যাধুনিক ব্যবস্থা৷ চলবে কড়া নজরদারি৷