মখন মিয়াকে মামলা থেকে অব্যাহতি প্রদানের দাবি

26

সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ মো. মখন মিয়াকে ৮ ফেব্রুয়ারীর বন্দরবাজার এলাকায় ভাঙচুর মামলায় ১৮ নম্বর আসামী এজহারভূক্ত করায় গত রোববার সন্ধ্যা ৭টায় বন্দরবাজারস্থ পৌরবিপণী মার্কেটের ৩য় তলায় সংগঠনের স্থায়ী কার্যালয়ে আয়োজিত তাৎক্ষণিক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জরুরী সভায় সভাপতিত্ব করেন, সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সদস্য এমএ হান্নান।
সভায় শেখ মো. মখন মিয়া চেয়ারম্যানের ব্যক্তি জীবনের কথা উল্লেখ করে বক্তরা বলেন, রাজনৈতিক অঙ্গনে একটি দলের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারেন এটা বাংলাদেশের প্রত্যেক মানুষের তার নিজস্ব অধিকার এবং বাংলাদেশের প্রত্যেক মানুষ একটা না একটা সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত আছে। নিরপেক্ষ মানুষ এই সমাজে খুবই কম। কিন্তু তার দীর্ঘ জীবনের ইতিহাস খুঁজলে এটাই পাওয়া যায় তিনি দীর্ঘসময় কাটিয়েছেন ব্যবসায়ীদের পাশে তাদের সুখে-দুঃখে অঃংশগ্রহণ করেছেন। ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য তিনি ছিলেন দলমতের উর্ধ্বে।
এজন্য সিলেটের সর্বস্তরের ব্যবসায়ীরা প্রতিষ্ঠাতা থেকে শেখ মো. মখন মিয়াকে সভাপতি হিসেবে মূল্য দিয়ে আসছেন।
এই বয়সে তিনি মাজার জিয়ারত, বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান, সামাজিক অনুষ্ঠান, বিচারকার্য, ইউনিয়ন পরিষদ, ব্যবসায়ীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। এমন কি গত ৮ ফেব্রুয়ারীর ঘটনায় উনার উপর যে মামলা হয়েছে ঐ দিন তার বাড়িতে ওয়াজ মাহফিল ছিল। সিলেটের খ্যাতিমান আলেম, ব্যবসায়ী সমাজ, ছাত্র যুবক তার বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন অথচ এই ৮ তারিখের ঘটনায় তিনি নাকি জড়িত ছিলেন।
যিনি মামলা করেছেন বা যার নির্দেশে মামলাটি রেকর্ড হয়েছে উনার কাছে আমাদের ব্যবসায়ী সমাজে দাবি অনতিবিলম্বে ঐ মামলা থেকে শেখ মো. মখন মিয়া চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি প্রদান করা হোক নতুবা সিলেটের ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদ করতে বাধ্য হবে।
আমরা উর্ধ্বতন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তার কাছে শেখ মো. মখন মিয়া চেয়ারম্যানের নাম তালিকা থেকে বিাদ দেওয়ার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।
জরুরী সভায় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সাজ্জাদুর রহমান আলতা, সহ সাধারণ সম্পাদক মো. আলেক মিয়া, সহ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক এএইচ তাফাদার রুহেল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. লায়েক মিয়া, সৈয়দ রাজন আহমদ, প্রচার সম্পাদক সরোজ ভট্টাচার্য্য, দপ্তর সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন, ক্রীড়া সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. পংকি মিয়া জালালী, অর্থ সম্পাদক মো. কয়ছর আলী, সহ সাহিত্য সম্পাদক ইমাম উদ্দীন কামাল, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক কামরুল ইসলাম কামরুল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক গাজী মো. জামিল, সহ আন্তর্জাতিক সম্পাদক আনন্দ রায়, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কুদ্দুছ খান, সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম মুর্জিব, মো. জাহাঙ্গীর আলম, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলাম, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুল গফুর, সদস্য মো. সাদেক মিয়া, বন্যা ও ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মুন্না, ব্যবসায়ী নেতা মাহবুবুর রহমান শিপু, মহেশ ঘোষ, সংগঠনের সদস্য ও সাংবাদিক কল্যাণ সংস্থার সভাপতি ইসলাম আলী।-বিজ্ঞপ্তি