অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটার স্মিথ-পেরি

33

স্পোর্টস ডেস্ক:: অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন দলটির অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। কাল রাতে মেলবোর্নে অ্যালান বোর্ডার মেডেলের (অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরাদের পদক) এই সম্মাননা পেয়েছেন তিনি। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার এই পদক জিতলেন স্মিথ। ২০১৫ সালে প্রথমবার এই সম্মাননা পেয়েছিলেন ২৮ বছর বয়সী তারকা।

পদক জয়ে স্মিথের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন তার ডেপুটি ডেভিড ওয়ার্নার এবং দলের প্রধান স্পিন অস্ত্র নাথান লায়ন। দু’জনকেই বড় ব্যবধানে পেছনে ফেলেছেন স্মিথ। ওয়ার্নারের ১৬২ এবং লায়নের ১৫৬ ভোটের বিপরীতে অজি দলপতির পক্ষে ভোট পড়েছে ২৪৬টি।

অ্যালান বোর্ডার পদকের পাশাপাশি ২০১৭ সালের সেরা টেস্ট ক্রিকেটারের পুরস্কারটাও জিতে নিয়েছেন স্মিথ। ভারত সিরিজ এবং চির প্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অ্যাশেজ সিরিজে ব্যাট হাতে রানের ফুলঝুরি ছিটিয়েছেন অজি সর্বাধিনায়ক। মূলত সে কারণেই টেস্ট সেরা পুরস্কারের দৌঁড়ে সবার আগে চলে এসেছেন স্মিথ। এখানে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন নাথান লিয়ন। ৩০ বছর বয়সী অফস্পিনার ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের পাশাপাশি বাংলাদেশ সফরেও বল হাতে দ্যুতি ছড়িয়েছেন। তবে স্মিথের থেকে ছয় ভোট কম পাওয়ায় পুরস্কারটি জেতা হয়নি লায়নের।

ওয়ানডের বর্ষসেরা হয়েছেন বিধ্বংসী ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। পুরস্কারটি জিততে অজি সহ-অধিনায়ক পেছনে ফেলেছেন বছরজুড়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করা অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিসকে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দলে জায়গা না হলেও ব্যাটে-বলে দারুণ একটি বছর কাটিয়েছেন তিনি। পুরস্কারের বড় দাবিদারও ছিলেন। টি-টোয়েন্টির সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারটা উঠেছে সাদা বলে ওয়ার্নারের উদ্বোধনী সঙ্গী অ্যারোন ফিঞ্চের হাতে।

এদিকে, সেরা নারী ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন তারকা অলরাউন্ডার এলিসি পেরি। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার বেলিন্ডা ক্লার্ক পদক জিতলেন তিনি। দুই বছর আগে প্রথমবার এই সম্মাননা পেয়েছিলেন পেরি। পদকটি জিততে পেরি নিরঙ্কুশ ব্যবধানে পেছনে ফেলেছেন বেথ মুনিকে। পেরির ১১৬ ভোটের বিপরীতে ৩৮ ভোট কম পেয়েছেন মুনি। তবে বর্ষসেরা হতে না পারলেও নারীদের সেরা ঘরোয়া ক্রিকেটারের পদক জিতেছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুনি।

২০০০ সাল থেকে অ্যালান বোর্ডার এবং ২০০২ সাল থেকে বেলিন্ডা ক্লার্ক পদক প্রদানের আয়োজন করে আসছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। সাবেক ক্রিকেটার, গণমাধ্যম এবং আম্পায়ারদের ভোটে নির্বাচন করা হয় বর্ষসেরাদের। চারবার করে অ্যালান বোর্ডার পদক জিতে সবার ওপরে আছেন সাবেক দুই অজি অধিনায়ক রিকি পন্টিং এবং মাইকেল ক্লার্ক। বেলিন্ডা ক্লার্ক পদকও সর্বাধিক চারবার করে জিতেছেন সাবেক দুই নারী ক্রিকেটার কারেন রোল্টন এবং শেলি নিট্সকে।