যুদ্ধ এড়ানোর চেষ্টা করছে তুরস্ক এবং আমেরিকা

44

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
সিরিয়ার উত্তরে কুর্দি নিয়ন্ত্রিত এলাকায় নেটো জোটের দুই সদস্য তুরস্ক এবং আমেরিকার সৈন্যরা এখন মুখোমুখি, এবং পরিস্থিতি বিপজ্জনক।

সিরিয়ার মানবিজ শহরে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি মিলিশিয়া ওয়াইপিজি, যাদের আঙ্কারা সন্ত্রাসী হিসাবে গণ্য করে, তাদের ওপর সামরিক অভিযান চালানোর হুমকি দিয়েছে তুরস্ক।

তুরস্ক এবং তাদের সমর্থিত মিলিশিয়ারা ১০০ কি.মি. দূরের শহর আফরিনে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি যোদ্ধাদের সাথে লড়াইতে লিপ্ত রয়েছে।

মানবিজ শহরটি ২০১৬ সালে ইসলামিক স্টেটের হাত থেকে নিয়ে নেওয়ার পর থেকে সেখানে কুর্দি ওয়াইপিজি মিলিশিয়াদের সাথে মার্কিন সৈন্যরাও রয়েছে।

সে কারণে গত সপ্তাহে একজন মার্কিন জেনারেল হুমকি দিয়েছেন, মানবিজে তুরস্ক কোনো হামলা চালানোর চেষ্টা করলে কড়া জবাব দেওয়া হবে।

সাথে সাথেই ‘অটোম্যান চড়’ দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান। শক্ত জবাব বোঝাতে তুর্কিরা ‘অটোম্যান চড়’ শব্দটি ব্যবহার করে।

যুদ্ধের দামামা যেন আরো জোরদার না হয় সে ব্যাপারে দুই নেটো সদস্য দেশের কূটনীতিকরা এখন চেষ্টা শুরু করেছেন।

রেক্স টিলারসন শুক্রবার গিয়েছিলেন আঙ্কারায়। সেখানে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভোসোগলুর সাথে বৈঠকের পর তিনি স্বীকার করেছেন তুরস্কের সাথে সম্পর্ক ‘সংকটজনক’ পর্যায়ে পৌঁছেছে।

মি টিলারসন ঘোষণা দেন উত্তেজনা প্রশমনে একটি যৌথ কমিটি শীঘ্রই বসবে। ‘মানবিজ শহরে পরিস্থিতি সেখানে বিশেষ গুরুত্ব পাবে’।

তবে ইস্তাম্বুল থেকে বিবিসির মার্ক লোয়েন বলেন, দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠকে বড় কোনো অগ্রগতির ইঙ্গিত নাই।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তুরস্ক ‘সত্যিকারের ফলাফল’ দেখতে চায়। ‘পরস্পরের সময় নষ্ট করার উদ্দেশ্য আমাদের নাই’।

তিনি খোলাখুলি বলেছেন, কুর্দি মিলিশিয়া বাহিনী ওয়াইপিজি ইউফ্রেতিস নদীর পূর্ব পার্শে চলে যাবে বলে যে প্রতিশ্রুতি আমেরিকা দিয়েছিল, তা তারা রাখেনি।

চাভোসোগলু হুঁশিয়ার করেন, ‘নদীর পশ্চিম পাড়ের নিয়ন্ত্রণ যদি ওয়াইপিজি নেওয়ার চেষ্টা করে, অঞ্চলের স্থিতিশীলতা কখনই আসবে না। সুতরাং আমরা চেষ্টা করবো সেটা যেন কখনই না হতে পারে’।-বিবিসি