উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা : বরইকান্দিতে জোড়া খুনে জড়িতদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে

16

সিলেট-৩ আসনের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী বলেছেন, দক্ষিণ সুরমা-বরইকান্দিতে জোড়া খুনের ঘটনা সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিচার বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দক্ষিণ সুরমার দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য যারা বহিরাগত লোকদের নিয়ে বাবুল মিয়া ও মাসুক মিয়াকে হত্যা করেছেন তাদেরকে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর যাতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সে ব্যাপারে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সচেষ্ট থাকতে হবে। তিনি এ সংঘর্ষের ঘটনায় যাদের ইন্দন রয়েছে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তাগিদ দেন। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’জনের প্রাণহানি ও ৩০/৩৫ জন আহত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ ধরনের ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। এলাকার মানুষের জানমালের নিরাপত্তা ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।
এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী গত সোমবার দক্ষিণ সুরমা উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামীম আরা পান্না, সহকারী কমিশনার ভূমি খালেদা বেগম রেখা, দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খায়রুল ফজল, মোগলাবাজার থানার আনোয়ারুল হোসাইন, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক রাজ্জাক হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক কবির আহমদ, মোল্লারগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ মো. মকন মিয়া, বরইকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান হাবীব হোসেন, কুচাই ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম, লালা বাজার ইউপি চেয়ারম্যান পীর ফয়জুল হক ইকবাল, কামালবাজার ইউপি প্রশাসক চন্দন দত্ত, অধ্যক্ষ আমিরুল আলম খান, সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব চুনু মিয়া, দক্ষিণ সুরমা প্রেসক্লাব সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুসিক, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা হিরন মিয়া, সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুল মুন্তাকিম, ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিনিধি এমদাদ হোসেন, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম মৃণাল কান্তি, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বেদবতী মিস্ত্রী প্রমুখ।-বিজ্ঞপ্তি