‘প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প অযোগ্য’

15

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্প নৈতিকভাবে অযোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার (এফবিআই) সাবেক পরিচালক জেমস কোমি। সেইসঙ্গে নারীদেরকে ট্রাম্প শ্রেফ মাংসপিন্ড মনে করেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি। রোববার এবিসি নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এ কথা বলেন। তার অভিযোগ, ক্রমাগত মিথ্যা বলে যাচ্ছেন ট্রাম্প এবং ন্যায়বিচারে বাধা দিচ্ছেন। এদিকে এই অনুষ্ঠান সম্প্রচারের কয়েক ঘণ্টা আগেই কোমি মিথ্যা বলছেন বলে অভিযোগ করেন ট্রাম্প। কোমির বই বিশেষ কৌসুঁলি রবার্ট ম্যুলারের তদন্ত ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন রাজনৈতিক সাময়িকী পোলিটিকোর বিশ্লেষক ডারেন স্যামুয়েলসন।

অনুষ্ঠান চলাকালে উপস্থাপক জর্জ স্টেফানোপোলোস কোমিকে প্রশ্ন করেন, আপনি কি মনে করেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট পদের জন্য উপযুক্ত নন? তিনি জবাব দেন, আমি মনে করি না প্রেসিডেন্ট পদের জন্য ট্রাম্প চিকিৎসাবিদ্যার দিক থেকে অযোগ্য, বরং তিনি নৈতিকভাবে অযোগ্য। একজন রাষ্ট্রপ্রধানের অবশ্যই দেশের মূলধারার মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকতে হয় এবং মেনে চলতে হয়। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো সত্যবাদী হওয়া। এই প্রেসিডেন্ট এদিক দিয়ে ব্যর্থ।

কোমি বলেন, ট্রাম্প সব সময় অনুগত লোকদেরই নিজের পাশে রাখেন। অনেকটা মব বসের মতো…কিন্তু একজন প্রেসিডেন্টের চ্যালেঞ্জ হলো যে তিনি তাঁর চারপাশে সব মতবাদের মানুষই রাখবেন। তবে যতই কেলেঙ্কারির ঘটনা প্রকাশ হোক না কেন, ট্রাম্পকে ইমপিচমেন্টের মধ্য দিয়ে যেতে হবে না বলে মনে করেন কোমি।

কোমির এই সাক্ষাৎকার প্রচারের পরপরই ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টির জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, বইয়ের কাটতি বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই এসব বলছেন কোমি। এতে আরও বলা হয়, কোমির মধ্যে যে বিদ্বেষ রয়েছে, তার চেয়েও খারাপ হলো বই বিক্রি করার জন্য তার এই বক্তব্য। কিছুদিনের মধ্যেই বাজারে আসছে কোমির লেখা বই ‘আ হায়ার লয়ালটি-ট্রুথ, লাইজ অ্যান্ড লিডারশিপ’।

গত বছর এফবিআই পরিচালক হিসেবে বহিষ্কৃত হওয়ার পর এই প্রথম টেলিভিশনে কোন সাক্ষাতকার দিলেন সাবেক এক মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তা। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যেকোন বিষয়ে অব্যাহত মিথ্যাচার করেন। তার এই মিথ্যাচার বিচার প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে থাকতে পারে বলেও শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। প্রেসিডেন্ট হিসেবে জাতীয় মূল্যবোধের প্রতি সম্মান রেখেই, দায়িত্ব পালনে ট্রাম্পকে পরামর্শ দেন জেমস কোমি।