প্রতারণা মামলায় দোষী সাব্যস্ত অভিনেতা রাজপাল যাদব

19

বিনোদন ডেস্ক:
পাঁচ কোটি টাকা নিয়েছিলেন। বছরের পর বছর কেটে গেলেও ফেরত দেননি। বারবার আদালতের সমন পাঠানো হয়েছিল। তার উত্তরও দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করেননি। শেষমেশ প্রতারণার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলেন অভিনেতা রাজপাল যাদব। দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন তাঁর স্ত্রী রাধা-সহ একটি কোম্পানিও।

উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুরে জন্ম ৪৭ বছরের অভিনেতার। লখনউ থেকে অভিনয় শিখে তিনি পাড়ি দেন দিল্লি। ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামা থেকে অভিনয়ের কোর্স কমপ্লিট করে ১৯৯৭ সালে মুম্বই আসেন। ওয়াচম্যান, পিওন, পোর্টারের মতো চরিত্র দিয়ে বলিউডের যাত্রা শুরু করেন। পরিচিতি পান রামগোপাল ভার্মার ‘জঙ্গল’ ছবির পর থেকে। তারপর থেকেই বলিউডের ছবিতে চরিত্রাভিনেতা হিসেবে অপরিহার্য হয়ে ওঠেন রাজপাল।

জানা গিয়েছে, মুরলী প্রজেক্টের মালিক এমজি আগরওয়ালের থেকে ২০১০ সালে ৫ কোটি টাকা নেন রাজপাল ও তাঁর স্ত্রী। এই টাকা দিয়েই ‘আতা পাতা লাপাতা’ ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন রাজপাল। কিন্তু ছবি মুক্তি পাওয়ার পরও টাকা ফেরত দেননি অভিনেতা ও তাঁর স্ত্রী। এর বিরুদ্ধেই দিল্লির কর্করডুমা আদালতে মামলা চলছিল। দীর্ঘদিন ধরেই এই মামলা চলছিল। বারবার সমন পাওয়া সত্ত্বেও অভিনেতা ও তাঁর স্ত্রী রাধা উপস্থিত হননি। এরই মধ্যে রাজপালের আইনজীবী একবার আদালতে ভুয়ো কাগজপত্র দাখিল করেছিলেন। এতে বিচারক বেজায় চটেন। ২০১৩ সালে অভিনেতাকে ১০ দিনের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। চারদিন তিহার জেলেও কাটিয়েছেন অভিনেতা। সেই মামলাতেই শনিবার রাজপাল, তাঁর স্ত্রী রাধা-সহ একটি কোম্পানিকে দোষী সাব্যস্ত করা হল। এপ্রিল মাসের ২৩ তারিখ সাজা ঘোষণা করা হবে।