‘পার্লামেন্টও কাস্টিং কাউচ মুক্ত নয়’

42

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
শুধু ফিল্ম নয়, রাজনীতিতেও কাস্টিং কাউচ আছে। এমনকি পার্লামেন্টও এই জঘন্য রীতি থেকে মুক্ত নয় বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন ভারতীয় কংগ্রেসের সদ্য সাবেক সাংসদ রেণুকা চৌধুরী।

শারীরিক সম্পর্কের বিনিময়ে কাজ পাইয়ে দেয়ার রীতিকে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে ‘কাস্টিং কাউচ’ হিসেবে অভিহিত করা হয়।মঙ্গলবার রেণুকার এমন মন্তব্যের পর পক্ষে-বিপক্ষে উঠেছে সমালোচনার ঝড়।তবে ‘কাস্টিং কাউচ’কে বড় পরিসরের কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি হিসেবে ব্যাখ্যা করেছেন তিনি।

রাজ্যসভায় রেণুকার মেয়াদ গত মাসে শেষ হয়েছে। কিছু দিন আগে সংসদে রেণুকার হাসি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর খোঁচা আর সে নিয়ে শূর্পণখার ভিডিও পোস্ট করে বিতর্কে জড়িয়েছিল বিজেপি। রেণুকা সেই প্রসঙ্গ টেনে বোঝাতে চেয়েছেন, এটাও কর্মক্ষেত্রে হয়রানি।

অবশ্য হঠাৎ করেই এমন মন্তব্য করেননি। ‘কাস্টিং কাউচ’ নিয়ে ইন্ডাস্ট্রির পাশে দাঁড়িয়ে তুমুল বিতর্ক বাধিয়ে বসে আছেন নৃত্যনির্দেশক সরোজ খান। তেলুগু অভিনেত্রী শ্রী রেড্ডি সম্প্রতি কাস্টিং কাউচের বিরুদ্ধে অর্ধনগ্ন হয়ে প্রতিবাদ করেন।

রেণুকার মতে, গোটা দেশেরই ‘মি-টু’বলে ওঠার সময় এসেছে। শুধু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি নয়, কাস্টিং কাউচ সব জায়গাতেই আছে। এমন ভাবাটা ভুল যে, সংসদ বা অন্য কর্মক্ষেত্র এই ব্যাধি থেকে মুক্ত।