চীনে ব্রেক-আপের মূল্য পরিশোধ অর্থে

14

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
বিচ্ছেদ বা ব্রেক-আপের পর ক্ষতিপূরণ! বিষয়টা অদ্ভূত হলেও সাম্প্রতিক সময়ে এমনই এক প্রথা চালু হয়েছে চীনের প্রেমিক-প্রেমিকাদের মধ্যে।

প্রেম করলে সবাই ডেটিংয়ে যাবে এটাই স্বাভাবিক। ঘোরাঘুরি, কোথাও বসে খাওয়া-দাওয়া করা -এগুলো ডেটিংয়েরই অংশ। এছাড়া প্রেমের সময় বিভিন্ন উপলক্ষে প্রেমিক-প্রেমিকা নিজেদের মধ্যে উপহার বিনিময় করে। সব মিলিয়ে ডেটিং বেশ ব্যয়বহুলও বটে।

এ কারণে সম্পর্ক শেষ হয়ে গেলে মূল্য দিয়ে তা পরিশোধের প্রথা নিজেরাই চালু করেছেন চীনের প্রেমিক-প্রেমিকারা। তবে এর বাধ্যবাধকতা নেই। তারপরও প্রেমিক-প্রেমিকাদের একটি পক্ষ দীর্ঘ দিনের প্রেমের সম্পর্কে ইতি টানার ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ দিচ্ছেন।

নতুন এই প্রথা অনুযায়ী, সম্পর্ক যে ছেড়ে দিচ্ছে ক্ষতিপূরণটা দিতে হচ্ছে তাকেই। ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রেমিক-প্রেমিকারা একসঙ্গে কত সময় সম্পর্কের পিছনে ব্যয় করেছেন, কতটা কষ্ট করেছেন- এগুলো বিবেচনায় নেওয়া হচ্ছে।

কেউ কেউ ডেটিংয়ের খরচের ওপর ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করেন। আবার কেউবা ব্রেক-আপের কারণে কতটা মানসিক ক্ষতি হলো সেটা বিবেচনা করে একটা মূল্য নির্ধারণ করেন।

তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ছেলেরাই ক্ষতিপূরণ প্রদান করেন। মেয়েরাও সম্পর্ক ভাঙলে ক্ষতিপূরণ দিচ্ছেন। চীনের শহরাঞ্চলে এই প্রবণতা বাড়ছে। অনেক সময় ব্রেক-আপের পর প্রেমিক বা প্রেমিকা ক্ষতিপূরণ দাবী করেও বসছেন।

কিছুদিন আগে চীনের এক নারী তার সাবেক প্রেমিকের সঙ্গে যেসব হোটেল এবং রেষ্টুরেন্টে একসঙ্গে যান এবং তাতে যা খরচ হয়- তার একটি তালিকা তৈরি করে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। সেই সঙ্গে প্রেমিক তার জন্য যত খরচ করেছেন তা শোধ করার ইচ্ছাও জানান।

এর আগে ব্রেক-আপের ক্ষতিপূরণ নিয়ে ২০১৪ সালে চীনের দক্ষিণ সিচুয়ান প্রদেশে ভয়াবহ এক ঘটনা ঘটে। ব্রেক-আপ ফি দিতে অস্বীকার করায় এক নারীর বাড়িতে অ্যাসিড ছুড়ে মারেন তার প্রেমিক।
সূত্র: বিবিসি