কমিটি নিয়ে সিলেট ছাত্রদলে গৃহদাহ অভিযোগের তীর মুক্তাদিরের দিকে

1013

সৈয়দ বাপ্পী ::
দীর্ঘ জল্পনা-কল্পনা শেষে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি ঘোষিত হয় গত বুধবার রাতে। কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সম্পাদক এ কমিটি অনুমোদন করেছেন। কিন্তু কমিটি ঘোষণার ২৪ ঘন্টা পেরুতে না পেরুতেই কমিটি থেকে সিনিয়র ৮ জন নেতা পদত্যাগ করেছেন। এদিকে বেগম খালেদা জিয়া মুক্তির আন্দোলনকে নস্যাৎ করতে রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামের অগ্র সৈনিক, ত্যাগী ও নির্যাতিতদের বাদ দিয়ে অছাত্র, বিবাহিত, অযোগ্য, নিষ্ক্রিয় ও সুবিধাভোগীদের দিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করছেন বঞ্চিত নেতাকর্মীরা। নবগঠিত এই কমিটির বিরুদ্ধে ঝাড়– মিছিল এবং বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্ঠা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির কুশপুত্তালিকা দাহ করেন বঞ্চিত নেতাকর্মীরা।
জানা যায়, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার কমিটি অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল। গত বুধবার রাতে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আকরামুল হাসান এ কমিটি অনুমোদন দেন। গঠিত ২৮ সদস্য বিশিষ্ট জেলা ছাত্রদলের কমিটিতে আলতাফ হোসেন সুমনকে সভাপতি, দেলোয়ার হোসেন দিনারকে সাধারণ সম্পাদক ও আব্দুল মোতাক্কাবীর সাকীকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে। অপর দিকে মহানগর ছাত্রদলের ২৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে সুদীপ জ্যোতি এষকে সভাপতি, ফজলে রাব্বী আহসানকে সাধারণ সম্পাদক ও রুবেল ইসলামকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে।
২৮ সদস্য বিশিষ্ট জেলা ছাত্রদলের কমিটিতে আলতাফ হোসেন সুমনকে সভাপতি, দেলোয়ার হোসেন দিনারকে সাধারণ সম্পাদক ও আব্দুল মোতাক্কাবীর সাকীকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে।
সিলেট জেলা ছাত্রদলের অন্য গুরুত্বপূর্ণ পদপ্রাপ্তরা হচ্ছেন- সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম, সহ সভাপতি এনামুল হক, মাসরুর রাসেল, জুবের আহমদ জুবের, আবুল কালাম, শিহাব খান, এনামুল কবির চৌধুরী সোহেল, জহুরুল ইসলাম রাসেল, মিনার হোসেন লিটন, ওসমান হারুন পনির, যুগ্ম সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন নাদিম, সোহেল ইবনে রাজা, আশরাফ উদ্দিন রাজীব, আব্দুস সামাদ লস্কর মুমিন, আলী আকবর রাজন, দুলাল রেজা, আনোয়ার হোসেন রাজু, জুবায়ের আহমদ দিলু, তানিমুল ইসলাম তানিম, তাজুল ইসলাম সাজু, সহ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাহের রাশেদ, ফয়জুর রহমান, আবদালী হাদি জনি, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রাশেদুর রহমান রাশেদ ও হারুনুর ইসলাম নিপুন।
সিলেট মহানগর ছাত্রদলের ২৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে সুদীপ জ্যোতি এষকে সভাপতি, ফজলে রাব্বী আহসানকে সাধারণ সম্পাদক ও রুবেল ইসলামকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে।
মহানগর ছাত্রদলের অন্য গুরুত্বপূর্ণ পদপ্রাপ্তরা হচ্ছেন- সিনিয়র সহ সভাপতি তোফায়েল আহমদ, সহ সভাপতি গোলাম মোহাম্মদ সেলিম চৌধুরী, আব্দুল করিম জোনাক, কামাল হোসেন, আব্দুল হাসিব, তানভীর আহমেদ চৌধুরী, এস এম সেফুল, কবির আহমদ চৌধুরী উজ্জ্বল, রাইসুল ইসলাম সনি, মোঃ সোহেল রানা, যুগ্ম সম্পাদক হোসাইন আহমদ, তাহসিন মেহেদী প্রিন্স, ফাহিম রহমান মাসুম, হাবিবুর বাশার হাবিব, সদরুল ইসলাম লোকমান, শাকিলুর রহমান শাকিল, সহ সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমদ, আবুল হোসেন, আফজাল চৌধুরী পাপ্পু, হাবিব মীর্জা, শামসুদ্দীন শামসুল, এম শোয়েব আহমেদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মেহরাজ ভুইয়া পলাশ, মাহবুব আলম সৌরভ, মাসুম আহমদ হেলাল ও মুহিবুল মজিদ চৌধুরী মুহিব।
এদিকে, নতুন জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি থেকে পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। তাদের অভিযোগ কমিটিতে রাজপথের অকুতোভয় সৈনিক ও ত্যাগী নেতাদের মুল্যায়ন করা হয়নি। যারা দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলনে সংগ্রামে অংশ নিয়ে, জেল জুলুম গ্রেফতার নির্যাতন সহ্য করে এবং দলের কর্মকান্ডে সক্রিয়ভাবে অংশ নেওয়া অনেক নেতা কর্মীকে যথাযথ মূল্যায়ন করা হয়নি। যারা স্কুলের গন্ডি পেড়োতে পারেনি, ক্যাম্পাস রাজনীতি করেনি, ভারসাম্যহীন, অছাত্র, ছিনতাইকারী, অযোগ্যদের নিয়ে এ কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে। তাই ভারসাম্যহীন এ কমিটি থেকে পদত্যাগ করে পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন, নবগঠিত জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম, সহ সভাপতি মাসরুর রাসেল, সহ সভাপতি শিহাব খান, যুগ্ম সম্পাদক সুহেল ইবনে রাজা, যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রাজু, মহানগর ছাত্রদলের সহ সভাপতি সুহেল রানা, যুগ্ম সম্পাদক শাকিলুর রহমান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুল মজিদ চৌধুরী মুহিব। তারা অবিলম্বে এ কমিটিকে বাতিল ঘোষণা করে ত্যাগী, শিক্ষিত ও যোগ্যদের নিয়ে কমিটি গঠনের আহ্বান জানান। তারা অযোগ্য, অছাত্র, বিবাহিত, চাকুরীজীবী, প্রবাসী, ব্যবসায়ী, ছিনতাইকারীদের সাথে ব্যর্থতার দায়ভার নিতে পারবেননা। গতকাল বৃহস্পতিবার সবুজ সিলেটকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ছাত্রদল নেতা মাসরুর রাসেল।
অপরদিকে, খালেদা জিয়া মুক্তির আন্দোলনকে নস্যাৎ করতে রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামের অগ্র সৈনিক, ত্যাগী ও নির্যাতিতদের বাদ দিয়ে অছাত্র, বিবাহিত, অযোগ্য, নিষ্ক্রিয় ও সুবিধাভোগীদের দিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি করা হয়েছে বলে অভিযোগ বঞ্চিত নেতাকর্মীদের।
গতকাল বৃহস্পতিবার নবগঠিত কমিটির বিরুদ্ধে ঝাড়– মিছিল ও কালো টাকার মালিক খন্দকার মুক্তাদিরের কুশপুত্তালিকা দাহন করেন বিদ্রোহী নেতৃবৃন্দ। ঝাড়– মিছিলটি নগরীর মিরাবাজার থেকে শুরু হয়ে বন্দরবাজার গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।
সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ও এম.সি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রদলের আহ্বায়ক বদরুল আজাদ রানার সভাপতিত্বে ও সিলেট ল’ কলেজ ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু ইয়ামিন চৌধুরী ও ছাত্রনেতা আবুল হোসেনের যৌথ পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল খালিক মিল্টন।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, অবৈধ আওয়ামী বাকশালীদের নীল নকশা বাস্তবায়নের পায়তারা হিসেবে সিলেট ছাত্রদলকে ধ্বংশের লক্ষ্যে খন্দকার মুক্তাদির কালোটাকার বিনিময়ে অছাত্র, অযোগ্য চাকুরিজীবী, ব্যবসায়ী, চিহ্নিত ছিনতাইকারী ও বিবাহীত, ২/৩ সন্তানের বাবাদের কমিটিতে স্থান দিয়ে সিলেট ছাত্রদলের অতীত ইতিহাস ঐতিহ্যকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছেন। বক্তারা বলেন, অবিলম্বে এই কালো টাকার বিনিময়ে গঠিত কমিটি বাতিল করে গণতন্ত্র পুণরুদ্ধার ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে বেগবান করার লক্ষ্যে রাজপথে লড়াকু সৈনিক, যোগ্য ও ত্যাগী ছাত্রনেতাদের দিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদল কমিটি গঠনের জন্য আগামীর রাষ্ট্রনায়ক, দেশনায়ক, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ছাত্রদল নেতা বিল্লাল আহমদ খান, পারভেজ আহমদ, একরাম হোসেন পোলক, ইন্তেজার আলী, সমর আলী, রুনু আহমদ, ইফতেখার আহমদ সোহেল, মিসবাহুল আম্বিয়া, আমিনুর রহমান, আহমেদ আল আমিন, রাসেল আহমদ, এস এ রিপন, সামাদুর রহমান অপু, লিজু আহমদ, আহমেদ পাপলু, রনি আহমদ, শাহজাহান চৌধুরী, তানভীর আহমদ খান, নাদির হোসেন রিয়াদ, ফজলে রাব্বী রিমন, শুভন শাহজাহান আবিদ, কাজী মিজানুর রহমান তুহিন, সেলিম আহমদ সাগর, শিহাব আহমদ, সুজন মাহমুদ, হাসান রাজা, মাহমুদুর হাসান, মান্না হোসাইন, ফাহিম আহমদ, শাওন আহমদ, ওয়াহিদ অভি, আহসান হিমু, মিনহাজ উদ্দিন সিরাজ, আহমেদ মুমিন, দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী, খুর্শেদ আলম, জুবের আহমদ, রনি মল্লিক, আলাউদ্দিন আল আশরাফ, ফাহিম আহমদ, রহান রশীদ নাবিল প্রমুখ।