বিমানে নিজের মোবাইল ফোন থেকেই কথা বলা যাবে দুনিয়ার যে কোনো জায়গায়

34

সবুজ সিলেট ডেস্ক ::
বিমানে বসেই ইন্টারনেট ব্যবহার, মোবাইল ফোনে কথা বলা সেই সাথে সরাসরি টেলিভিশনও দেখতে পারবেন যাত্রীরা। এমনই সব সুবিধা অচিরেই শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা ‘বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস’। প্রথমবারের মতো কয়েকটি উড়োজাহাজে সেবাগুলো পাওয়া যবে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একজন মহাব্যবস্থাপক শাকিল মেরাজ জানান, বিমানের প্রত্যেক যাত্রী বিনামূল্যে তাদের মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপে ২০ মেগাবাইট ডেটা ব্যবহার করতে পারবেন। দেশের প্রথম বিমান সংস্থা হিসেবে এই সেবা তারা চালু করতে চলেছেন বলে জানান তিনি।তিনি বলেন, বিমানের বহরে বোয়িং-এর তৈরি চারটি ড্রিমলাইনার যুক্ত হতে চলেছে। প্রথম ড্রিমলাইনটারটি আসবে আগামী আগস্টে। সবগুলো ড্রিমলাইনারেই উড্ডয়নরত অবস্থায় মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট ব্যবহার করা যাবে। তবে ফোনকল বা বাড়তি ডেটা ব্যবহারে খরচ এখনও নির্ধারিত হয়নি।এই সেবা চালু হলে দেশের পতাকাবাহী বিমান সংস্থার ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে বলেই মনে করে এই কর্মকর্তা।সেবাগুলো চালু হলে বিমান যাত্রীরা উড়োজাহাজে থ্রিজি গতিতে বিনামূল্যে ওয়াই-ফাই সুবিধা নিতে পারবেন। সেই সঙ্গে নিজের মোবাইল ফোন থেকেই কথা বলা যাবে দুনিয়া যে কোনো জায়গায়। আর টেলিভিশনে থাকবে নয়টি চ্যানেল।ইতিমধ্যে বিমানে টেলিকম সেবা চালুর ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।নতুন সেবা চালু করতে প্যানাসনিক এভিয়েশন করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তিও হয়ে গেছে। প্রতিষ্ঠানটি ২৫টি স্যাটেলাইট দিয়ে দেশে ও দেশের বাইরে এই সেবা দিবে।