আজ জিতবে তো ব্রাজিল!

27

স্পোর্টস ডেস্ক ::
নকআউট পর্বে যেন বর্ণহীন হতে শুরু করেছে রাশিয়া বিশ্বকাপ। শনিবার মেসি-রোনালদোর বিদায়ের পরে রবিবার রাশিয়ার কাছে হেরে গিয়েছে স্পেন। জার্মানি বিদায় নিয়েছে আগেই। এই অবস্থায় আজ সোমবার নেইমারের দল কী করে, সেদিকেই তাকিয়ে ফুটবল বিশ্ব।

মেক্সিকোর সঙ্গে কি জিততে পারবে ব্রাজিল? এই উত্তরই আপাতত খুঁজছে সকলে। যা মিলবে কয়েক ঘণ্টার ভিতরেই। ম্যাচ শুরুর আগে ঠিক কোন অবস্থায় নেইমার অ্যান্ড কোং? ভক্তদের উৎকণ্ঠার শেষ নেই। মেক্সিকোর গতিময় ফুটবল নিয়ে ভিতরে ভিতরে যে ব্রাজিল খানিকটা টেনশনে আছে তা অনুমান করাই যায়। থিয়াগো সিলভা ও মিরান্দার জুটি কীভাবে মেক্সিকান আক্রমণকে প্রতিহত করে তার উপরে ম্যাচের অনেক কিছুই নির্ভর করছে। মার্সেলোর চোট নিয়েও চিন্তায় রয়েছেন তিতে।

তবে শেষ পর্যন্ত সবথেকে আলোচনার বিষয় অবশ্যই ব্রাজিলের আক্রমণ ভাগ। যার নেতৃত্বে অবশ্যই নেইমার। বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়। টুর্নামেন্টের শুরুতে খানিক অগোছালো দেখালেও গ্রুপের শেষ ম্যাচে সার্বিয়ার বিরুদ্ধে ২-০ জেতার সময়ে ব্রাজিলকে যথেষ্ট শক্তিশালী দেখিয়েছে। কেবল নেইমার তো নন, ফিলিপে কুতিনহোর ফর্মও নিশ্চয়ই তিতের মনোবল বাড়াচ্ছে।

মেক্সিকো কিন্তু গত বিশ্বকাপে ব্রাজিলকে আটকে দিয়েছিল। গোলশূন্য ড্র হয়েছিল ম্যাচ। দেখার এটাই, এবারের ম্যাচে কি তাদের হারাতে পারেন সেলেকাওরা, নাকি মেক্সিকো আরও বড় কোনও চমক উপহার দেবে ফুটবল দুনিয়াকে।

তবে পরিসংখ্যান বলছে খেলা টাইব্রেকার পর্যন্ত গড়ালে ব্রাজিলের জয়ের সম্ভাবনাই বেশি। কারণ মেক্সিকোর চেয়ে টাইব্রেকারের মুখোমুখি হওয়ার অভিজ্ঞতা বেশি ব্রাজিলেরই। বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত ৪ বার টাইব্রেকার পেয়েছে ব্রাজিল। এর মধ্যে ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্সের কাছে একবারই হেরেছিল পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

মেক্সিকোর টাইব্রেকারের অভিজ্ঞতা খুব বেশি নেই। বিশ্বকাপে দুইবার টাইব্রেকার পেয়েছে তারা। আর দুইবারই কপালে হার জুটেছে মেক্সিকানদের।

এদিকে এবারের বিশ্বকাপের উন্মাদনার পিছনে যে ক’টি নাম, তার মধ্যে টিকে রয়েছে কেবল এই একটিই নাম। সোমবার যদি নেইমার হেরে যান, তাহলে কার্যতই বর্ণহীন হয়ে পড়বে বিশ্বকাপ। ব্রাজিল তো বটেই, মন খারাপ হয়ে যাবে সারা বিশ্বের সেই সব দেশের সমর্থকদেরও যারা বিশ্বকাপে নিজেদের দেশের না খেলার দুঃখ ভোলেন ব্রাজিলকে সমর্থন করে।

কেবল ব্রাজিলের জন্যই নয়, বিশ্বকাপের জৌলুস টিকিয়ে রাখতে তাই ব্রাজিলের জেতা একান্ত জরুরি।