গোয়াইনঘাটে বন্যায় সড়ক যোগাযোগ ব্যাহত

41

সবুজ সিলেট ডেস্ক ::
টানা বৃষ্টি ও ঢলে সিলেটের গোয়াইনঘাটে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। অব্যাহত রয়েছে পানি বৃদ্ধি। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা।

বন্যায় কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। পিয়াইন, সারী, গোয়াইনসহ সবকটি নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করে প্রতিনিয়তই প্লাবিত করছে নতুন নতুন এলাকা। হিদাইরখালে অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত বেড়িবাঁধের কারণে সারী নদীর উপকন্ঠে সানকিভাঙ্গা, আসামপাড়া হাওর, নবমখন্ড, নয়াগাঙ্গেরপাড়, বাউরভাগ, বাউরভাগ হাওর এলাকায় পানির চাপ বৃদ্ধি পেয়ে ভাঙ্গনের তীব্রতা ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে। ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে আশপাশের গ্রামীণ সড়ক ব্যবস্থায়ও।

এদিকে বন্যা পরিস্থিতি অবনতি থাকায় জাফলং-বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারীতে সব ধরণের পাথরবালি উত্তোলন বন্ধ থাকায় লক্ষাধিক খেটে খাওয়া মানুষ অনাহারে অর্ধ্বাহারে দিনাতিপাত করছেন। সারী-গোয়াইন, সালুটিকর-গোয়াইনঘাট, হাদার পার-বঙ্গবীর -গোয়াইনঘাট, গোয়াইনঘাট-রাধানগর জাফলং সড়কের উপর দিয়ে কোথাও কোথাও হাটু পানি আবার কোথাও কোথাও কমর পানিও বইছে। উপজেলার সবকটি সড়ক সমুহ পানিবন্ধি থাকায় উপজেলা সদর ও জেলা শহর সিলেটের সাথে সম্পুর্ণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ রয়েছে। নৌকা ছাড়া কোন যানবাহণ চলছেনা এসব এলাকায়।

উপজেলা কৃষি অফিসার এম আনিছুজ্জামান জানান, রোপায়িত ৪ হাজার হেক্টর রোপায়িত আউশ ধানের মধ্যে চলমান বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হয়ে পড়েছে ১ হাজার হেক্টর আউশক্ষেত। পানিবন্ধি থাকায় উপজেলার প্রায় সবকটি ইউনিয়নের বিদ্যালয় সমুহে ছাত্র/ছাত্রী উপস্থিতি নেই বলেলই চলে। অনেক স্কুল বন্ধও রয়েছে। উপদ্রুত অঞ্চলের পানিবন্ধি মানুষের হাহাকার চিত্র ফুটে ওঠে। তাদের সাথে কথা বলে জানা যায় বেশির ভাগই ঘরেই খাবার,বিশুদ্ধ পানি সংকট রয়েছে। গবাধি পশু নিয়ে কৃষকরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পাল জানান, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে গোয়াইনঘাটের প্রায় সবকটি এলাকাই আকষ্মিক বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। সবকটি এলাকাই সার্বক্ষনিক যোগোযোগ রয়েছে। এখন পর্যন্ত ৯টন চাল,শুকনো খাবার,পানি বিশুদ্ধ করণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়েছে। আরও ত্রান প্রয়োজনে কর্তৃপক্ষ বরাবরে পত্র পাঠানো হয়েছে। উপজেলার বন্যায় বিপদগ্রস্থ মানুষজনকে উদ্ধারে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বার্বক্ষনিক নজরধারী রয়েছে।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম চৌধুরী জানান,আকষ্মিক পাহাড়িঢলে সৃষ্ট বন্যায় গোয়াইনঘাটের ৯টি ইউনিয়নের প্রায় সবকটি এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। পানিবন্ধি মানুষজন চরম অমানবিক জীবন যাপন করছে। সরজমিনে বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে বন্যার্তদের মধ্যে উপজেলা পরিষদের তরফে ত্রান বিতরণ করেছি। আরও ত্রাণ চাওয়া হয়েছে।