মৌলভীবাজারে সড়ক দূর্ঘটনা : মা-ভাই ও ২ মামাকে হারিয়ে নিঃস্ব সায়েম

39

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ::
মৌলভীবাজারে প্রাইভেট কার-সিএনজি অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ছয়জনের মধ্যে একই পরিবারের রয়েছেন চার সদস্য। তাতে মা, ভাই ও দুই মামাকে হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেল সায়েম আহমদ। মরদেহগুলো দেখে বারবার অজ্ঞান হয়ে পড়ছে সে। গত শনিবার রাত ৯টায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে গিয়ে সায়েমকে বাকরুদ্ধ অবস্থায় দেখা যায়। বারবার অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছে সে। স্বজনরা তাকে শান্ত করার চেষ্টায় ব্যর্থ হচ্ছেন।
এর আগে সন্ধ্যায় সড়ক দূর্ঘটনায় তার মা সাজনা বেগম (২৮), ছোট ভাই সাইফ আহমদ (১২) এবং দুই মামা জাহাঙ্গীর তালুকদার ও নাহিদ তালুকদার (২৬) নিহত হন।
সায়েমের চাচা ইসমাইল হোসেন বলেন, সায়েমের মা, ভাই ও দুই মামা আত্মীয়র বাড়ি থেকে ফেরার পথে মার্কেটিং করে সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় নাদামপুর এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা প্রাইভেট কারের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে তারা সবাই নিহত হন। এসময় পরিবারের সঙ্গে সায়েমের থাকার কথা থাকলেও সে নানা বাড়িতে থেকে যায়। যার জন্য আজ বেঁচে আছে সায়েম।
জানা গেছে, সায়েম খালিশপুর রাহমানিয়া মডেল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র। দিনমজুর বাবা মশাহিদ আহমদ, মা ও ছোট ভাইকে নিয়ে তাদের পরিবার। এখন এদের হারিয়ে দিকভ্রান্ত হয়ে পড়েছে সে। দুই মামা তাদের টানাপোড়েনের সংসারে সহায় ছিলেন তারাও একই ঘটনায় নিহত হলেন। সবকিছু হারিয়ে এখন নিঃস্ব সায়েম।
এদিকে, স্ত্রী ও সন্তান হারিয়ে হতভম্ব হয়ে আছেন সায়েমের বাবা মশাহিদ। বাবা-ছেলেকে শত মিথ্যা বলেও শান্ত করা যাচ্ছে না। পুরো হাসপাতাল ভারি হয়ে উঠেছে তাদের বুকফাটা আর্তনাদে।
মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্মকর্তা গোলাম কবির ভূঁইয়া বলেন, মা-ভাই ও মামাদের হারানোর শোকে অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছে সায়েম। প্রাইমারি ট্রিটমেন্ট করে তার জ্ঞান ফেরানো হয়েছে। এখন সে কারও সঙ্গে কোনো কথা বলতে পারছে না।