রাতের আধারে পুলিশ পাহাড়ায় খাদ্য গুদামের ছাদ ঢালাই অনিয়মের অভিযোগ এলাকাবাসির

45

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
দোয়ারাবাজারে রাতের আধারে নব নির্মিত খাদ্য গুদামের ছাদ ঢালাই করা হয়েছে অনিয়মের অভিযোগ এলাকাবাসির। জানা যায় গত শুক্রবার সকাল বেলা নব নির্মিত খাদ্যগুদামের ছাদ ঢালাইয়ের কাজ শুরু করা হয় সকাল সারে এগারটা থেকে বারোটার মধ্যে কিন্ত ছাদ ঢালাইয়ের কাজ দিনের বেলা শেষ করার কথা থাকলেও লোকবল কম থাকার কারণে দিনের বেলা ঢালাইয়ের কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদারের লোকজন। রাতের বেলা ঢালাইয়ের কাজ দেখে এলাকার প্রতিবাদি লোকজন কাজে অনিয়ম দেখে নিষেধ বাধাঁ করেন।
এলাকাবাসি রাতের বেলা কাজ করতে নিষেধ করলে খাদ্য গুদাম পরিদর্শক অলক বৈষনব পুলিশ দিয়ে তাড়িয়ে দেন এলাকার লোকজনদের। পুলিশ খাদ্য গুদাম এরিয়ায় যাবার পর কিছু প্রতিবাদি লোকের নাম লিষ্ঠ করেন এবং এলাকার লোকজনদের দমক দিয়ে তাড়িয়ে দেন বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসি।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার মো.আরিফুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি পুলিশে খবর দেইনি। পুলিশ এসেছিল ঠিক আছে কিন্তু কে বা কারা পুলিশ আনছে আমি জানিনা।
স্থানিয় ইউপি সদস্য মো. গেদু মিয়া জানান, রাতের বেলা কাজে অনিয়ম দেখে আমার গ্রামের লোকজন তাতে প্রতিবাদ জানিয়েছিল। ছাদের রডের পিঞ্জিরার নিচে যে ব্লক দেয়া হয়েছিল সেই ব্লক সরিয়ে ঢালাই দেয়া হচ্ছে এমনকি ঢালাইয়ে সঠিকভাবে কাজ করা হচ্ছেনা দেখে প্রতিবাদ করছিল এলাকার লোকজন।
এসময় খাদ্যগুদাম পরিদর্শক তিনি নিজেই কাজে উপস্থিত না থেকে পুলিশ দিয়ে এলাকার লোকজনদের ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দিয়ে তাদের ইচ্ছামত নি¤œমানের কাজ করিয়েছেন। রাতের বেলায় কাজ শেষ করতে পারেনি তারা পরের দিনও কাজ করা হয়েছে। তাহলে রাতের বেলা কাজে অনিয়ম করার জন্যই খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা পুলিশ পাহাড়াদিয়ে কাজ করিয়েছেন।
খাদ্য গুদামের পরিদর্শদ অলক বৈষ্ণব বলেন, আমি মোবাইলে কোন বক্তব্য দিতে পারবনা কোন কিছু জানতে চাইলে সামনা সামনি আসেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ইদ্রিস আলী বীর প্রতীক বলেন, আমরা চাই উপজেলার প্রতিটি কাজ সঠিক ভাবে হউক আমাদের অতিত অভিজ্ঞতা বড়ই তিক্ত অনেক কাজ নির্মানের কিছুদিনের মধ্যেই বিনষ্ঠ হয়ে যায়। খাদ্য গুদাম একটি অত্যান্ত গুরুত্বপুর্ণ ভবন যেখানে খাদ্য থাকবে অবশ্যই নির্ভুল কাজটি করতে হবে। কাজের শ্রমিক সারাদিন কাজ করে সেই শ্রমিরা রাতের বেলা কাজ করার সময় অবশ্যই ভুল হতে পারে। রাতে কাজ করলে অবশ্যই কাজে অনিয়ম হবে। কাজে অনিয়ম হলে সেই কাজের মাসুল অবশ্যই দোয়ারাবাজার উপজেলা বাসি মাসুল গুনতে হবে। আমরা চাই সঠিক নিয়মে কাজ করা হোক রাতের বেলা কাজের প্রতিবাদি লোকজনকে পুলিশ দিয়ে তাড়িয়ে দেয়া অবশ্যই একটি অন্যায় করা হয়েছে।
দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মহুয়া মমতাজ বলেন, খাদ্যগুদামে ঢালাইয়ের কাজ হয়েছে আমি জানিনা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কোন লোক আমাকে জানায়নি। আমাকে সন্ধার সময় খাদ্যগুদাম পরিদর্শক অলক বৈষনব মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন এলাকার লোকজন কাজে নিষেধ বাধাঁ করছে, আমি বলছি যদি কোন সমস্যা মনেকরেন তাহলে আইনের আশ্রয় নিতে পারেন। আমরা চাই সরকারি কাজ যেন সঠিক ভাবে হয়, রাতের আধাঁরে কাজটি করা সঠিক হয়নি এব্যপারে অভিযোগ পেলে তদন্তপুর্বক ব্যাবস্থা নেয়া হবে।
দোয়ারাবাজার থানার এসআই মঞ্জুরুল আলম বলেন, আমাকে ওসি সাহেব পাঠিয়েছেন। যারা কাজে নিষেধ বাধা করছিল তারা স্থানীয় লোকজন দের খাদ্যগুদাম এরিয়া থেকে বের করে দেয়ার পর ঠিকাদার ঢালাইয়ের কাজ করেছেন।