মুক্তাদির, শামীম, নাসিমসহ বিএনপির ৩৯ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

55

সবুজ সিলেট ডেস্ক ::
বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা খন্দকার মুক্তাদির আহমদ, জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, আরিফুল হকের নির্বাচন কমিটির সদস্য সচিব আব্দুল রাজ্জাকসহ বিএনপির ৩৯ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

গতকাল রোববার (২২ জুলাই) রাতে নগরীর শাহপরাণ থানায় গোয়েন্দা পুলিশের উপ পরিদর্শক ফয়েজ আহমেদ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে পুলিশের দায়িত্ব পালনে বাঁধা প্রদানের অভিযোগ আনা হয়। শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। মামলায় মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ খসরু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত সাদেক, সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমেদ, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি এমরান আহমদসহ সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির শীর্ষ নেতাকে এই মামলার আসামী করা হয়।
গত ২১ জুলাই আরিফের প্রচারণার কাজে নিয়োজিত ২ কর্মীকে গ্রেপ্তারের পর তাদের মুক্তির জন্য মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (দক্ষিণ)-এর কার্যালয়ের সামনে দলবল নিয়ে বসে পড়েন আরিফুল হক। তার দাবি ছিল, মামলা ও ওয়ারেন্ট ছাড়াই তাঁর দুই কর্মীকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ। তবে পরবর্তীতে পুলিশ জানিয়েছে, তাদের সুনির্দিষ্ট মামলার ভিত্তিতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এরপর সেদিন বেলা ৪টার দিকে অবস্থান তুলে নিয়ে আদালতের মাধ্যমে কর্মীদের ছাড়িয়ে আনবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছিলেন আরিফ। আর এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের দায়িত্বপালনে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়। এর আগেও গত ১২ জুলাই মধ্যরাতে নগরীর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির সামনে অবস্থান নিয়েছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। অভিযোগ ছিল, বন্দরবাজার এলাকায় তাঁর নির্বাচনী পোস্টার লাগানোর সময় এককর্মীকে মারধর করে বন্দরবাজার ফাঁড়ি পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে অপর মেয়র প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের সমর্থক ছাত্রলীগ কর্মীরা। প্রায় ৪০ মিনিট অবস্থানের পর সে রাতে আটককর্মীকে ছাড়িয়ে আনতে সক্ষম হয়েছিলেন আরিফুল হক চৌধুরী।