সিলেটে কার ফ্রী সিটি’স এলায়েন্স’র মানববন্ধন

16

কার ফ্রী সিটি’স এলায়েন্স বাংলাদেশ এর আত্মপ্রকাশ উপলক্ষে গত শনিবার বিকালে সিলেট বিভাগীয় সহযোগী সংগঠন রহমানীয়া প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশন সিলেটের সহযোগিতায় নগরীর পাঠানটুলা পয়েন্ট সংলগ্ন পাঠানটুলা দ্বি-পাক্ষিক উচ্চ বিদ্যালয় এর সামনে এক মানববন্ধন ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়।
রহমানীয়া প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আতাউর রহমান খান শামছু সভপতিত্বে ও অফিস সম্পাদক আল আমিন আহমেদ নাঈমের পরিচালানায় র‌্যালি পরবর্তী মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাঠানটুলা দ্বিপাক্ষিক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সোরয়ার জাহান বাবুল।
বক্তব্য রাখেন আল-মাদনী পরিষদ সিলেটের উপদেষ্টা কুতুব উদ্দিন শহিদি, সভাপতি হানিফুজ্জামান জসিম, সিলেট ডেভেলপমেন্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক রেজুয়ান আহমেদ লিপেন, ওয়াকার ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের প্রচার সম্পাদক আলী হোসাইন।
উপস্থিত ছিলেন রহমানীয়া প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য আব্দুল মোমেন জুবের, সদস্য বাপ্পি হোসেন, সামীম আহমেদ, নাজমুল ইসলাম, আতিকুর রহমান জাকির, তাহমিদ আহমেদ, ফায়েক আহমেদ, মাসুম আহমদ, শান্ত দাশ, সাকিক আহমেদ, তপু দাশ প্রমুখ।
“সময় বাঁচাই, দূষণ কমাই ব্যাক্তিগত যান্ত্রিক যান পরিহার করি, যানজট মুক্ত দেশ গড়ি” এই স্লোগান সামনে রেখে কার ফ্রী সিটি’স এলায়েন্স বাংলাদেশের উদ্বোধন উপলক্ষে দেশের ৮টি বিভাগীয় শহরে একযোগে মানববন্ধন ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, যান্ত্রিক যানের আধিক্যের কারণে বায়ুদূষণ, শব্দদূষণ, সময় অপচয়, খেলার জায়গা সংকট এবং সড়ক দূর্ঘটনার পরিমান দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। গাড়িমুক্ত শহর গড়ে তুললে আমাদের নিরাপদে সব জায়গায় যাতায়াত সম্ভব হবে। মূল্যবান সময়টুকু আমাদের দৈনন্দিন জীবনে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারব। যান্ত্রিকযান মুক্ত শহর গড়ে তুলতে পারলে শহরে পর্যাপ্ত উন্মূক্ত স্থান ও গণপরিসরের ব্যবস্থা করা যাবে। যেখানে সামাজিকীকরণের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে। শিশুরা নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে খেলাধূলা করতে পারবে।
সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ্ব আতাউর রহমান খান শামছু বলেন, অযান্ত্রিক যানকে প্রাধান্য দিয়ে শহরের অবকাঠামোর উন্নয়ন সম্ভব। যান্ত্রিকযান মুক্ত শহর গড়ার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করেতে হবে। যান্ত্রিক যানবাহন থেকে নির্গিত ধোয়া আমাদের পরিবেশে কার্বণের মাত্রা বাড়িয়ে দিচ্ছে। এটি জলবায়ু পরিবর্তনের অন্যতম কারণ। জলবায়ু পরিবর্তনের কারনে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবে। এখন আমাদের চুপ থাকলে হবে না। গাড়িমুক্ত শহর আমাদের স্বপ্ন। এই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে অনেকগুলি ধাপ পার হতে হবে। আমরা যদি পরিকল্পতভাবে এগিয়ে যাই তাহলে স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারবো।-বিজ্ঞপ্তি