প্লিজ, তথ্য-প্রমাণ ছাড়া অপবাদ দেবেন না : কাদের

6

সবুজ সিলেট ডেস্ক
শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক আন্দোলন নিয়ে অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হতে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)সহ কয়েকটি দেশের প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসি মিলনায়তনে ছাত্রলীগ আয়োজিত ছাত্রী সমাবেশে তিনি একথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের অনেকের উপর আক্রমণ হলো, কিন্তু কোনো মিডিয়ায় দেখলাম না। উল্টো অপপ্রচার হলো- আমরাই আক্রমণকারী। সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের ছাত্রলীগ আক্রমণ করেছে এমন খবর ছাপা হয়েছ।’

তিনি বলেন, ‘আমি তো বলেছি- সাংবাদিকের উপর ছাত্রলীগ আক্রমণ করেছে এমন তথ্য-প্রমাণ পেলে আমি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলাপ করে এদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেব, আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

এসময় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘প্লিজ, তথ্য-প্রমাণ ছাড়া অপবাদ দেবেন না, অপপ্রচার করবেন না। আমাদের পার্টি কোনো অন্যায়কারীকে ক্ষমা করে না। আমি অনুরোধ করব- প্লিজ, ঢালাওভাবে অপবাদ দেবেন না। সাংবাদিকদের বলছি- যদি কোনো অভিযোগ থাকে সুনির্দিষ্টভাবে নাম-পরিচয় দিয়ে প্রকাশ করুন, আমরা ব্যবস্থা নেব।’

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘের কাছে, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে, কানাডার কাছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে নালিশ করেছে বিএনপি। অথচ এই কানাডার আদালত বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল বলে রায় দিয়েছে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইইউকে জানিয়ে দিয়েছি- অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না। সত্য অনুসন্ধান করুন, সত্য উদঘাটন করুন। অহেতুক, অনাবশ্যক আমাদের উপর অপবাদ চাপাবেন না।’

সরকারের বিরুদ্ধে নিরব বিপ্লব ঘটানো নিয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ‘কবে ঘটবে, কখন ঘটবে? কারা ঘটাবে- জনগণ নাকি বিএনপির নেতারা? যারা নয় বছরে নয় মিনিটও রাস্তায় বিক্ষোভ দেখাতে পারেনি!’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আন্দোলনের ডাক দিয়ে বিএনপির বড় বড় নেতারা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষে শুয়ে শুয়ে হিন্দি সিরিয়াল দেখে। নেতারা না নামলে কর্মীরা মাঠে নামে না। আবার মোবাইল ফোনে খবর নেয় পুলিশের গতিবিধি কোথায়, কেমন।’

তিনি বলেন, ‘দু-তিন মাস পরেই তো ইলেকশনের সিডিউল ঘোষণা হবে। এতোদিন পারলেন না, এখন আর কবে নিরব বিপ্লব ঘটাবেন? আন্দোলনের মরা গাঙ্গে আর জোয়ার আসবে না। মানুষের মুড এখন নির্বাচনের, এই নির্বাচনের মুডে আন্দোলনের ডাক কেউ শুনবে না।’

বিএনপির সঙ্গে কোনো সংলাপ নয় জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কার সঙ্গে সংলাপ করব- ১৫ আগস্টের হত্যাকারীদের যারা বিদেশে পাঠিয়ে দূতাবাসে চাকরি দিয়েছে? সংলাপের পরিবেশ তারা রেখেছে?’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত কুমার দাসের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন- ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হোসাইন সাদ্দাম প্রমুখ।