আরিফই হলেন সিলেটের মেয়র

83

স্টাফ রিপোর্টার
নাটকীয়তার পর সিলেট সিটি করপোরেশনে টানা দ্বিতীয়বারের মতো নগরপিতার আসনে বসলেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের চেয়ে ৬ হাজার ২০১ ভোট বেশি পেয়ে তিনি বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হলেন। সিসিকের ১৩৪টি কেন্দ্র মিলিয়ে নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে আরিফ পেয়েছেন ৯২ হাজার ৫৯৮ ভোট। আরিফের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ নেতা বদর উদ্দিন আহমদ কামরান নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৮৬ হাজার ৩৯৭ ভোট। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় বেসরকারিভাবে তাকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়।
নির্বাচনে স্থগিত হওয়া ২ কেন্দ্রের মধ্যে হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী ১০৫৩ ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৩৫৪ ভোট। পুনঃভোটে গাজী বুরহান উদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ভোটার ছিলেন ২২২১ জন। এর মধ্যে আজ ভোট পড়েছে ১৩১২টি। তন্মধ্যে ধানের শীষে আরিফ পেয়েছেন ১০৪৯ ভোট, নৌকায় কামরান পেয়েছেন ১৭৩ ভোট।
গত ৩০ জুলাই সিসিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। অনিয়মের অভিযোগে নগরীর ২৪ নং ওয়ার্ডের গাজী বুরহান উদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (নারী-পুরুষ) এবং ২৭ নং ওয়ার্ডের হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (নারী-পুরুষ) কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন।
নির্বাচনে ২৭টি ওয়ার্ডে ১৩৪টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৩২টির ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী আরিফুল হক চৌধুরী ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট। আওয়ামী লীগ প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।
১৩২ কেন্দ্রের ফলাফলে চার হাজার ৬২৬ ভোটে আরিফুল হক চৌধুরী এগিয়ে থাকলেও এ দুই কেন্দ্রের মোট ভোট ৪ হাজার ৭৮৭। সে হিসেবে স্থগিত কেন্দ্রের ভোটের চেয়ে ১৬১ ভোট পিছিয়ে ছিলেন আরিফ। যে কারণে নির্বাচন কমিশন কেন্দ্র দু’টিতে ফের নির্বাচন ঘোষণা করে।

নির্বাচনে স্থগিত হওয়া ২ কেন্দ্রের মধ্যে হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী ১০৫৩ ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৩৫৪ ভোট। পুনঃভোটে গাজী বুরহান উদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ভোটার ছিলেন ২২২১ জন। এর মধ্যে আজ ভোট পড়েছে ১৩১২টি। তন্মধ্যে ধানের শীষে আরিফ পেয়েছেন ১০৪৯ ভোট, নৌকায় কামরান পেয়েছেন ১৭৩ ভোট।

গত ৩০ জুলাই সিসিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। অনিয়মের অভিযোগে নগরীর ২৪ নং ওয়ার্ডের গাজী বুরহান উদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (নারী-পুরুষ) এবং ২৭ নং ওয়ার্ডের হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (নারী-পুরুষ) কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচনে ২৭টি ওয়ার্ডে ১৩৪টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৩২টির ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী আরিফুল হক চৌধুরী ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট। আওয়ামী লীগ প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

১৩২ কেন্দ্রের ফলাফলে চার হাজার ৬২৬ ভোটে আরিফুল হক চৌধুরী এগিয়ে থাকলেও এ দুই কেন্দ্রের মোট ভোট ৪ হাজার ৭৮৭। সে হিসেবে স্থগিত কেন্দ্রের ভোটের চেয়ে ১৬১ ভোট পিছিয়ে ছিলেন আরিফ। যে কারণে নির্বাচন কমিশন কেন্দ্র দু’টিতে ফের নির্বাচন ঘোষণা করে।