কানাইঘাটে জমি নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১ আহত ৭

11

কানাইঘাট প্রতিনিধি
কানাইঘাটে বিরোধী জমিতে ধানের চারা রোপনকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ফারুক আহমদ (৪২) নামে একজন নিহত হয়েছেন। সে পৌরসভাস্থ বায়মপুর (বদিকোনা) গ্রামের মৃত আসদ রাজার পুত্র।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, পাশর্^বর্তী সাতবাঁক ইউপি’র কুওরেরমাটি গ্রামে একখন্ড ফসলী জমি নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলেছে পৌরসভাস্থ বায়মপুর (বদিকোনা) গ্রামের মৃত আরব আলীর পুত্র ইসলাম উদ্দিন গংদের সাথে নিহত ফারুক আহমদ গং দের। এ নিয়ে পূর্বেও দু’পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে বলে জানা গেছে। এরই জের ধরে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৬টায় মৃত আসাদ রাজার পুত্র সাবেক লন্ঠনপ্রবাসী ফারুক আহমদ তার বড়ভাই আলাউদ্দিন, ছোটভাই মাসুক আহমদ বিরোধপুর্ণ ঐ জমিতে ধানের চারা রোপন করতে যান। এতে প্রতিপক্ষ একই গ্রামের মৃত কুতুব আলী পুত্র ইসলাম উদ্দিন, তার ভাই সাবেক ইউপি সদস্য শরীফ উদ্দিন, আব্দুন নুর সহ বেশ কয়েকজন লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে জমিতে গিয়ে ফারুক ও তার ভাইদের উপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত জখম করে মাটে ফেলে আসে। এতে স্বজনরা খবর পেয়ে দ্রুত ছুঠে গিয়ে কাদামাখা মাট থেকে তাদের উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে তাদের প্রেরণ করে। এ সময় ওমেক হাসপাতালে নেওয়ার পথে আহত ফারুক আহমদ মারা যায়। এবং অপর দুই ভাই আলাউদ্দিন ও মাসুক আহমদ আসমানী হাসপাতালে আশংকাজনক অবস্থায় রয়েছেন।

এ ঘটনায় নিহতের বাড়িতে স্বজনদের কান্নায় বাড়ির বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। এদিকে ইসলাম উদ্দিন জানান তাদের চাষ করা জমিতে ফারুক গংরা দেশীয় অস্ত্র ও তাদের দলবল নিয়ে গায়ের জোরে ধানের চারা রোপন করতে যায়। এতে তারা শান্তিপূর্ণ ভাবে বাধা দিলে ফারুক গংরা তাদের উপর হামলা চালায়। এ হামলায় ইসলাম উদ্দিন তার ভাতিজা সেলিম আহমদ, শামীম আহমদ ও হারিছ উদ্দিন গুরুত্বর আহত হয়েছেন বলে তিনি দাবী করেন। তবে ঘটনার পরেই কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল আহাদ সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।