সুনামগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রী নিহত, আহত ৪

21

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার দিরাই-মদনপুর রাস্তার নারাইনপুর এলাকায় একটি যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় সিএনজিতে থাকা এক কলেজ ছাত্রী নিহত এবং আরো ৪ জন আহত হয়েছেন। নিহতের নাম মুন্নী বেগম(১৮)। সে জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পাথারিয়া ইউনিয়নের পাথারিয়া গ্রামের মো. শফিক মিয়ার মেয়ে। সে সুনামগঞ্জ মহিলা কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্রী বলে জানা যায়।

গতকাল রোববার দুপুর ২টায় এই সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়েছে। বাসটি আটক করলেও চালক এবং হেলপার পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। আহতদের চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে এবং নিহতের ময়না তদন্ত চলছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়,নিহত কলেজ ছাত্রী সুনামগঞ্জে পরীক্ষা শেষ করে একটি সিএনজি যোগে পাথারিয়া নিজ বাড়িতে যাওয়ার পথে সিলেট থেকে দিরাইগামী একটি যাত্রীবাহি বাস নারাইনপুর নামকস্থানে সিএনজিকে পেছন থেকে ধাক্কা দিলে সিএনজিতে থাকা কলেজ ছাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হন এবং সিএনজির চালকসহ আরো ৪ জন আহত হন। আহতরা হলেন,নিহতের বড়ভাই ইমন মিয়া(২২), সদর উপজেলার বেতগঞ্জ বাজারের র্দূলভপুর গ্রামের আঞ্জব আলীর মেয়ে তাছলিমা বেগম (১১) ও ছোট বোন সাইমা আক্তার (৭)। অপর একজনের নাম ও পরিচয় জানা যায়নি।

খবর পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যান এবং নিহতের স্বজনদের শান্তনা দেন সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত,দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম প্রমুখ।

সুনামগঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজের প্রভাষক মো. মাসুদ জামান লিটন জানান,আমাদের কলেজ ছাত্রী মুন্নী বেগমের খুনী বাস মালিক ,চালক ও হেলপারকে দ্রুত গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তি প্রদানের দাবী জানান। অন্যতায় কলেজ ছাত্রীরা তাদের সহপাঠি মুন্নীর খুনীদের গ্রেফতারে আন্দোলনে যাবে বলেও তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. শহীদুল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,বাসটি আটক করলেও বাস চালক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।