জগন্নাথপুরে স্কুল শিক্ষকের বাড়িতে হামলা, গ্রেফতার ৩

27

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি
জগন্নাথপুর উপজেলার চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের বেরী গ্রামে গত শুক্রবার রাত ১০টায় স্কুল শিক্ষকের বাড়িতে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে নগদ টাকা স্বর্নলংকার সহ প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে। ঘটনার পর গ্রাম বাসী জড়ো হয়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও লুটপাটের সাথে জরিত বেরী গ্রামের মৃত তরিক উল্লার ছেলে দবির মিয়া (৪৮) মৃত রফিক উল্লার ছেলে ফখরুল মিয়া(৪২) ও তার ভাই সিরাজুল ইসলাম কালাকে(৩৬) আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় স্কুল শিক্ষক ফররুখ আহমদ বাদী হয়ে শুক্রবার রাতেই জগন্নাথপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

জানা যায়, চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের বেরী গ্রামের বাসিন্দা জগন্নাথপুর পৌর শহরের কেশবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফররুখ আহমদ তার নিজ এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা রেখে আসছেন। ফলে এলাকার কতিপয় অপরাধিরা ও চোর ডাকাত ও সন্ত্রাসীদের গডফাদার দবির মিয়া তাকে বিভিন্ন সময় প্রাণ নাশের হুমকি সহ ক্ষতি সাধনের চেষ্টায় লিপ্ত থাকে। গত শুক্রবার রাত ১০টায় একই বাড়ির বাসিন্দা মৃত তরিক উল্লার ছেলে দবির মিয়ার নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী শিক্ষক ফররুখ আহমদের বসত ঘরে প্রবেশ করে তাকে খুঁজতে থাকে।

এ সময় তিনি বাহিরে থাকায় সন্ত্রাসীরা শিক্ষক ফররুখ আহমদের এক ভাতিজাকে অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার ভয় দেখিয়ে ঘরের মালামাল লুটপাট চালায়। দবির মিয়া ও তার সহযোগিরা প্রধান শিক্ষক ফররুখ আহমদের ঘরের আলমিরার তালা ভেঙ্গে নগদ ৫লাখ টাকা ৬ ভরি ওজনের স্বর্নালংকার ও দামী মালামাল সহ প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল নিয়ে যায়। এ সময় বাড়ির নারী শিশুদের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির বাসিন্দা চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্যা সাকিরুন নেছা ছুটে এলে দবির মিয়া ও তার লোকজন দবির মিয়ার ঘরের একটি কক্ষে ওই নারী সদস্যাকে আটকে রেখে শীলতাহানীর চেষ্টা চালানো হয়। এদিকে ঘটনার খবর পুরো গ্রামে জানাজানি হলে গ্রামের লোকজন প্রধান শিক্ষক ফররুখ আহমদের বাড়িতে জড়ো হন। এসময় গ্রাম বাসী দবির মিয়া ও তার সহযোগি ২জনকে আটক করেন এবং দবির মিয়ার কক্ষ থেকে আটক নারী সদস্যা সাকিরুন নেছাকে উদ্ধার করেন।

বিষয়টি জগন্নাথপুর থানায় জানানো হলে এস আই সাইফুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বেরী গ্রামে পৌছেন। এসময় গ্রাম বাসী কর্তৃক আটককৃত ৩জনকে পুলিশে তুলে দেয়া হয়। জগন্নাথপুর থানার এস আই সাইফুর রহমান জানান বেরী গ্রামে লুটপাট অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের গতকাল শনিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।