এখনো বিদ্যালয়বিহীন বালাগঞ্জ ওসমানীনগরের অনেক গ্রাম

8

শিপন আহমদ, ওসমানীনগর
বালাগঞ্জ-ওসমানীনগর উপজেলায় একাধিক গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় না থাকায় শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কোমলমতি শিশুরা। উপজেলায় বিদ্যালয়বিহিন একাধিক গ্রামে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত লোকজন থাকলেও সেসব গ্রামে কোনো প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই। এতে দুই উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রাথমিক শিক্ষার অপ্রতুলার কারনে ভেস্থে যাচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা। ফলে গ্রামের পর গ্রাম থেকে যাচ্ছে শিক্ষার আলো বঞ্চিত। বিদ্যালয়বিহীন এসব গ্রামের সহ¯্রাধিক শিশু শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হয়ে জাতির জন্য বুঝায় পরিণত হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সরকারী নিয়মানুয়ায়ী দু’হাজার জনসংখ্যার বসবাসকারী প্রত্যেকটি গ্রামে এবং দুই কিলোমিটারের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই এমন গ্রামগুলোতে একটি করে প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপনের কথা রয়েছে। এতে একটি বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য প্রয়োজন ৩৩ শতাংশ ভূমি। এসব গ্রামের শিক্ষার্থীরা স্কুল দূরবর্তী হওয়ায় এবং গ্রামগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় বিদ্যালয়েও নিয়মিত যেতে পারেনা শিক্ষার্থীরা। ফলে তাদের লেখা পড়ার ক্ষেত্রে ব্যাঘাত ঘটছে।

এ অবস্থায় অনেকাংশ শিশুর স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হওয়া এসব শিক্ষার্থীরা জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন ঝুকিপূর্ণ কাজে। ফলে দুই উপজেলায় বাড়ছে শিশু শ্রম। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের তথ্যমতে, দু’হাজার জনসংখ্যার বসবাসকারী প্রত্যেকটি গ্রামে এবং দুই কিলোমিটারের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই এমন গ্রামের সংখ্যা বালাগঞ্জ-ওসমানীনগর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৯টি।

এ গ্রাম গুলো হচ্ছে- বালাগঞ্জের দেওয়ান বাজার ইউনিয়নের খাঁপুর, আলাপুর, সিরাজপুর, ও সুলতানপুর, ওসমানীনগরের সাদিপুর ইউনিয়নের ভট চাতল, বেগমপুর, বেরারাই, লামা গাভুরটিকি, দয়ামীর ইউনিয়নের বড় দিরারাই। এরমধ্যে বড় দিরারাই গ্রামে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন হলেও মামলা সংক্রান্ত জটিলতায় স্থাপনের পর থেকে কার্য্যক্রম স্থগিত রয়েছে। বিদ্যালয়বিহিন এসব গ্রামেরএকাধিক ব্যাক্তিদের সাথে আলাপ কালে জানা যায়, বছরের অধিকাংশ সময় গ্রাম বন্যা আক্রান্ত থাকে। বিদ্যালয় দুরবর্তী হওয়ায় শিশুরা প্রতিদিন স্কুলে যেতে আগ্রহী হয়না।

বালাগঞ্জ-ওসমানীনগরের দ্বায়িত্বে থাকা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (চলতি দ্বায়িত্ব) আব্দুর রকিব ভুইয়া বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় বিহীন গ্রামে বিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের আওতায় ক্রমান্নয়ে সবকটি গ্রামে বিদ্যালয় স্থাপন করার চলছে। এক্ষেত্রে বিদ্যালয় বিহীন গ্রামগুলোর বাসিন্দারে নিজ উদ্যোগে বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য জমিদান করতে হবে। এ বিষয়ে উপজেলা থেকে তালিকা তৈরী করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত বিষয়ে উর্ধ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা পেলে যথারীতি উদ্যোগ গ্রহন করা হবে।