রঞ্জন ঘোষ ওসমানীনগর পূজা পরিষদের চলমান বিবেধ সৃষ্টি করেছেন

21

ওসমানীনগর প্রতিনিধি
সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রঞ্জন ঘোষ কর্তক ওসমানীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের চলমান বিবেধ সৃষ্টি হয়েছে। আজ পূজা উদযাপন পরিষদ দ্বি খন্ডিত। উনার মনগড়া কমিটির জন্য ওসমানীনগরে সনাতীদের মধ্যে ক্ষোবের সৃষ্টি হয়েছে। কাউন্সিলরদের মূল্যায়ন না করায় কাউন্সিলররা তাদের মতে ওসমানীনগরে একটি কমিটি গঠন করেন। কাউন্সিলদের মূল্যায়ন না করলে কোন কমটি ওসমানীনগরে থাকবে না। যারা স্থানীয় কাউন্সিলরদের মূল্যায়ন করবে তারাই উপজেলায় নেতৃত্ব দেবে। উরে এসে জুরে বসা জাবে না। আমরা অর্ধ জীবন সংগঠনের জন্য ত্যাগ স্বীকার করলাম আর তারা উরে এসে চেয়ারে বসবেন। এটা ওসমানীনগরে হবে না। উরে এসে নেতা হওয়া যায় না। নেতা হতে হলে মাঠে থাকতে হবে। আর যারা মাঠে থাকবে তাদের নেতৃত্বে থাকবে উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ। যাদের সংগটনে কোন দিন দেখা যায় নি, আজ তাদের নেতা বানিয়ে দিতে ব্যস্ত রঞ্জন ঘোষ। ওসমানীনগরে তা কখনও হতে দেওয়া হবে না। রঞ্জন ঘোষের মনগড়া কমিটি ওসমানীনগরবাসী মেনে নিবে না।

গত শুক্রবার ওসমানীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের মতবিনিময় সভা বক্তরা উপরোক্ত কথা বলেন।

উপজেলার গোয়ালাবাজার ইউপির তেরহাতি গ্রামের রন্টু লাল দেবের বাসভবনে দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত মতবিনিময় সভার শুরুতে গীতা পাঠ করেন হিন্দু মহাজোটের সাধারন সম্পাদক অঞ্জন দাশ। এদিকে, সদ্য প্রয়াত গোবিন্দ গোস্বামী, ডা. জিতেন চক্রবর্তী, মনিন্দ্র দেব, অজিত দেব নিতাই, মায়া রানী দেব, দিপু রানী দেব, পুস্পা রানী দেব, নিহার রানী দেব, মনিন্দ্র দেব’র বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নীরবতা পাল করা হয়। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন ওসমানীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিভুল দত্ত। সাধারন সম্পাদক উজ্জ্বল দাশ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নেপুর গুনের যৌথ পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অবিভক্ত বালাগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি পিনাক পানি ভট্রাচার্য্য, প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন ওসমানীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক আহ্বায়ক সত্যেন্দ্র কুমার পাল, বিশষে অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলার সাবেক আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ভাষ্কর দত্ত, হিন্দু মহাজোট উপজেলার সভাপতি অরুন দেব, সহ -সভাপতি অনু লাল দে, প্রচার সম্পাদক অনিল দাশ, সুকোমল দত্ত, মহিলা সম্পাদিকা চামেলি রানী দে, গোয়ালাবাজার সনাতন সংঘের সদস্য সজল দেব, সঙ্গিত শিল্পী বাবুল বৈদ্য, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সহ -সভাপতি শংকর সেন, উপজেলার সাবেক আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মনোজ দাশ, নান্টু দেব, নৃপেন্দ্র মালাকার, শংকর লাল সেন, দয়ামীর ইউপি পূজা পরিষদের সভাপতি রস রঞ্জন দাশ, সহ-সভাপতি দিপংকর দেবনাথ, উসমানপুর ইউপি পূজা পরিষদের সভাপতি কৃপাময় দাশ, তাজপুর ইউপি পূজা পরিষদের সহ-সভাপতি সজল দেব, গোয়লাবাজার ইউপি পূজা পরিষদের সভাপতি নিখিল চন্দ্র দেব, সহ সভাপতি দিপু দেব, বুরুঙ্গা ইউপি পূজা পরিষদের সভাপতি বারিন্দ্র কুমার পাল, সহ-সভাপতি সুকুল ধর, সাধারন সম্পাদক অজিত চন্দ্র দেব, পশ্চিম পৈলনপুর ইউপি পূজা পরিষদের সাধারন সম্পাদক বিকাশ চন্দ্র দেব, সাদীপুর ইউপি পূজা পরিষদের সভাপতি স্বপন কুমার দাশ, উমরপুর ইউপি পূজা পরিষদের সভাপতি চিত্ত রঞ্জন সূত্রধর, সহ-সভাপতি মনধির সূত্রধর, জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোটের সভাপতি সঞ্জয় দেব শক্তি, সহ- সভাপতি দিবাকর চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক রাজিব দাশ পুরকায়স্থ, সাংগঠনিক সম্পাদক অঞ্জন দেব সবুজ, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অজয় দেব, প্রচার সম্পাদক সুমন আচার্য্য, সমাজ কল্যান সম্পাদক আশুতোষ দাশ ভানু, সদস্য সজিব পাল কৃষ্ণ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পংকজ দেব, সহ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক রনিক পাল , ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সংরক্ষণ সম্পাদক সঞ্জিব দাশ (মিঠু)।

এ সময় অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গোয়ালাবাজার ইউপির সাবেক সদস্য মুকুল দেব, প্রবীন মুরব্বী ফনি দাশ, সমর দেব, সতীশ দেবনাথ, অজিত চন্দ্র দেব, সমিরন দেবরায়, অজয় দে, সিতশে আচার্য্য, সুজিত ধর, কানাই লাল দেব, সত্যেন্দ্র বৈদ্য শত, সুদ্বীপ চন্দ, সুজিত দাশ, নারায়ন চক্রবর্তি, কৌশিক সেন, বিধান চন্দ্র দেব, বিমল দাশ, শীতল ধর, রিমন দত্ত মিঠু, সঞ্জয় চন্দ লিমন, শুভ দেব নয়ন, সজীব দেব, খুকন সূত্রধর, রুনু দেব, পরিতোষ চৌধুরী, মান্না দেব, অশোক দেব, নিকেশ দেব, দেবজ্যোতি দাশ আকাশ, রুনু পাল, প্রানেশ দাশ, কিশোর দাশ, বাপ্পন দেব, ধর্ম, বিকাশ দেব, সুবোধ সূত্রধর, সমি চন্দ্র দেব, প্রতাপ চন্দ্র বোধ, রাজু কান্তি দে, মঞ্জু গোপাল চক্রবর্তী, জীবন দেবনাথ, স্বপন সেন, দিপক দাস প্রমূখ।

সভায় ওসমানীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি, আহবায়কসহ এক তৃতীয়াংশ আহবায়ক কমিটির সদস্য, ৮ ইউনিয়নের কাউন্সিলার বৃন্দ, এ অঞ্চলের প্রবীন মুরব্বি ও যুব সমাজ সক্রিয় ভাবে ওসমানীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিভূল দত্ত ও সাধারণ সম্পাদক উজ¦ল দাশ কে সমর্থন করেন এবং এই উপজেলার একমাত্র কমিটি, এই কমিটির নেতৃত্বে প্রতিটি ইউপি কমিটি, দূর্গা মান্ডপ ও আসন্ন শারদীয় দূর্গোৎসব পরিচালনা করার ঘোষনা দেন পাশাপাশি সর্বাত্মক সহযোগীতার অঙ্গিকার করেন। এদিকে, পূজা উদযাপন পরিষদের চলমান বিভেদ নিয়ে সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করায় স্থানীয় সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বক্তারা।