জোট সরকারের আমলে উত্তরাঞ্চলে প্রায়ই মঙ্গা দেখা দিতো : শিল্পমন্ত্রী

50

তাহিরপুর প্রতিনিধি/ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি
এদেশের মন্ত্রীরা বিদেশের গেলে মনে করত ভিক্ষার ঝুলি নিয়ে এসেছেন। এখন তা আর বলতে পারে না। চীন, জাপনাসহ বিভিন্ন বিদেশী রাষ্ট্রের বিনোয়োগকারীরা এখন এদেশে বিনোয়াগ করার জন্য বলছেন। বার্জেট হত বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তায় কিন্তু বর্তমান সরকার নিজেস্ব অর্থায়নেই ৪ লাখ কোটি টাকার বার্জেট করেছে। বিশ্ব ব্যাংকের দিকে না থাকিয়ে নিজেস্ব অর্থায়নে ৩৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে পদ্মা সেতু করছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সামরিক প্রশাসককেরা দেশের ক্ষমতা দখল করে গনতন্ত্রকে হত্যা করেছিল। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে দেশে গনতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্টা করেছেন। ২০২১ সালের মধ্য আয়ের দেশে পরিনত করার ঘোষনা দিয়েছেন তার প্রমান ইতিমধ্যে দিয়েছেন। দেশের প্রতিটি ক্ষেতেই নারীর ক্ষমতায়নের বিশেষ কাজ করার জন্য ৪৭ বিভিন্ন পুরুষ্কার করেছেন শেখ হাসিনা। গতকাল শনিবার দুপুরে তাহিরপুর উপজেলার ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করে বিকালে ৪ টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশে দুর্ভিক্ষ থাকে না, বিএনপি জোট সরকারের আমলে উত্তরাঞ্চলে প্রায়ই মঙ্গা দেখা দিতো। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলে উত্তরাঞ্চলে আর মঙ্গা থাকে না। মানুষের মৌলিক চাহিদা নিশ্চিত করতেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ করে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ সরকার।

তিনি নির্বাচনের বিষয়ে বলেন, নির্বাচন বানচাল করার জন্য চেষ্টা করছেন সেই অপশক্তিরা। শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই এদেশে নির্বাচন করা হবে এবং বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা ঘরে তুলব আমরা, কেউ তা প্রতিরোধ করতে পারবে না।

মন্ত্রী আরো বলেন, উপজেলার ট্যাকেরঘাট বিসিআইসির পরিত্যাক্ত চুনাপাথর প্রকল্পটি নিয়ে একটি প্রকল্প আছে। সে অনুযায়ী কাজ চলছে। এখানে ৩২লাখ টাকা ক্ষুদ্র শিল্পের জন্য ধার্য করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, যারা মুক্তিযোদ্ধের বিরোধিতা করছেন যারা এদেশের স্বাধীনতা মেনেনিতে পারে নি তারা এখন তারাই শেখ হাসিনাকে হত্যার করার জন্য চেষ্টা করছে। আল্লাহ নিজের হাতে তাকে বার বার বাচিঁয়েছেন।

বিদ্যুৎ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা বিষয়ে বলেন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ ও যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ সকল ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করেছেন। শিশু ও মাতৃ মৃত্যু কমানোর জন্য স্বাস্থ্য সেবায় ব্যাপক পরিবর্তন এনেছেন। এই সরকার আসার পূর্বে ৪৭পার্সেন্ট ছিল শিক্ষার হার এখন ৭৮পার্সেন্ট উন্নতি হয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান আবুল হোসেন খাঁ সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ ১আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, এছাড়াও অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলী মর্তুজা, আলকাছ উদ্দিন খন্দকার, জালাল উদ্দিন, ইউনুছ আলী, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন পলাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর খোকন, বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন, উত্তর বড়দল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন, বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম আহবায়ক রায়হান উদ্দিন রিপন, উত্তর বড়দল ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুক মিয়া, বাদাঘাট ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সেলিম হায়দার, সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি জুমুর কৃষ্ণ তালুকদার, তাহিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক তানশেন তালুকদার তুশার, ছাত্রলীগ নেতা রাহাদ হায়দার, দীমান চন্দ্র প্রমুখ।

এ ছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি জালাল উদ্দিন, মোশরফ হোসেন, তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল তালুকদার, বালিজুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল জহুর, বালিজুড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মিলন কান্তি তালুকদার, বড়দল দক্ষিণ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, প্রমূখ।

এর আগে, সকালে ফেঞ্চুগঞ্জে শাহজালাল সরকারখানায় সার পরিবহনের রেললাইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। এতে সভাপতিত্ব করেন বিসিআইসির চেয়ারম্যান শাহ আমিনুল হক। আওয়ামী লীগ নেতা মাহফুজুর রহমান জাহাঙ্গীরের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, ভারপ্রাপ্ত শিল্প সচিব আব্দুল আলিম। শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন তোয়াজ্জেল আহমদ। সভার আগে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে সার পরিবহনের রেললাইনের উদ্বোধন করেন।