শারপিন টিলায় টাস্কফোর্সের অভিযান : শামীমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

97

স্টাফ রিপোর্টার
কোম্পানীগঞ্জের শাহ আরফিন (শারপিন) টিলায় গত রোববার টাস্কফোর্সের অভিযান ও বোমা মেশিন জব্দের ঘটনায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল বাছিরের ছেলে ও আলোচিত আওয়ামী লীগ নেতা শামীম আহমদ ওরফে পাথর শামিম, তার ভাই বিল্লাল আহমদ, ভাতিজা কেফায়েত উল্লাহ, মাইনুল্লাহ ও ভাতিজি জামাই মামুন চৌধুরীকে আসামী করে মামলা করেছে পুলিশ। সরকারি ভূমিতে অবৈধ প্রবেশ, বোমা মেশিন দিয়ে পাথর চুরি ও নদীর গতিপথ পরিবর্তনের অভিযোগে এ মামলা করা হয়। মামলা নং-১১।

গত রোববার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুদ রানার নেতৃত্বে অভিযানকালে ৮টি বোমা মেশিন ধ্বংস করা হয়। এসময় হোসেন আহমদ নামে এক বোমা মেশিনের মালিককে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাতে এ ঘটনায় মামলা হলেও হোসেন আহমদকে এ মামলায় আসামী কিংবা গ্রেফতার দেখায়নি পুলিশ। তাকে অন্য মামলায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুদ রানার নেতৃত্বে কোম্পানীগঞ্জ থানার এসআই স্বপন মিয়া ও তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপজেলার ১নং পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়নে শাহ আরফিন টিলায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে ৮টি বোমা মেশিন ধবংস ও আনুসাঙ্গিক মালামাল জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় রোববার রাতে পুলিশ বাদী হয়ে শামীমসহ ৫ জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করে। কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল হাই মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল বাছির বলেন, কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল হাইয়ের নির্যাতন থেকে রেহাই পেতে ও তাকে থানা থেকে প্রত্যাহারের দাবিতে সিলেটে পৃথক দুটি সাংবাদিক সম্মেলনেও করেছি। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওসি আমার পরিবারের উপর আবারো মামলা দায়ের করেছে। এর আগেও শামীম ও কেফায়েতের বিরুদ্ধে অবৈধ বোমা মেশিন পরিচালনার অভিযোগে মামলা করে পুলিশ।