নবীগঞ্জে মাটি ভরাট নিয়ে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ২

26

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি
নবীগঞ্জ উপজেলার রোস্তমপুর টোলপ্লাজা কাছে বসুন্ধরা গ্রুপের এলপি গ্যাস কোম্পানির মাটি ভরাট নিয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে ঠিকাদার গ্রুপ ও এলাকাবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন গুরুতর আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এলাকাবাসীর প্রতিরোধের মুখে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

জানা যায়, বসুন্ধরা গ্রুপের এলপি গ্যাস কোম্পানি রোস্তমপুর মৌজায় কয়েক একর জমি ক্রয় করে কিছুদিন পূর্বে মাটি ভরাটের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে। মাটি ভরাটের কাজ পাওয়ার জন্য রোস্তমপুর গ্রামের লোকজন ও জ-িএর মালিক পক্ষ চেষ্টা চালিয়ে আসছিলেন। -এরই মধ্যে সিলেটের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মনি এন্টারপ্রাইজ কাজের অনুমোদন নিয়ে আসলে। এই কাজের ভাগাভাগি নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দুইগ্রুপের মধ্যে রশি টানাটানি শুরু হয়।

-এরই মধ্যে কাজটি নবীগঞ্জের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কয়েকজন নেতাকে হস্তান্তর করে। কিন্তু স্থানীয় দেবপাড়া আওয়ামী লীগ, যুবলীগ নেতৃবৃন্দসহ রোস্তমপুর গ্রামবাসীর পক্ষে অবস্থান নিয়ে উক্ত কাজে বাধা প্রদাণ করে তারা এ কাজটি পাওয়ার জন্য দাবী তুলে। এনিয়ে শালিস বৈঠক হলে মাটি ভরাটের কাজ বন্ধ রাখা হয়।

গতকাল শালিস অমান্য করে শুক্রবার দুপুরে ঠিকাদার পক্ষ কিছু বহিরাগত লোক নিয়ে উক্তস্থানে জোরপূর্বক মাটি ভরাটের জন্য গাড়ি নিয়ে গেলে এলাকাবাসী তার প্রতিবাদ জানায়।

এনিয়ে দুপক্ষের মধ্যে এক পর্যায়ে দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় এলাকার শত শত মানুষ প্রতিবাদী হয়ে উঠলে চরম উত্তেজনার মুখে ঠিকাদার পক্ষের লোকজন এলাকা ত্যাগ করেন।

খবর পেয়ে গোপালার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ কাওছার আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন।

এ বিষয়ে ঠিকাদার গ্রুপের দায়িত্বে নিয়োজিত উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু সালেহ জীবন জানান, বসুন্ধরা গ্রুপের কাছ থেকে সিলেটের মনি এন্টারপ্রাইজ মাটি ভরাটের কাজের অনুমোদন পায়, এই কাজে গতকাল মাটি ভরাটের কাজে রোস্তমপুর গ্রামের কিছু লোকজন বাধা দেয় এবং ট্রাক চালককে মারধোর করে, ১৫ লাখ টাকা চাঁদাদাবী করে কাজ আটকে দেয়। এ খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম।

এদিকে রোস্তমপুর গ্রামের বাসিন্দা দেবপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম বলেন, কিছু বহিরাগত লোক নিয়ে এলাকাবাসীকে পাশ কাটিয়ে লাটিসোটা নিয়ে জোরপূর্বক মাটি ফেলার চেষ্টা করলে এনিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়, রোস্তমপুর গ্রামসহ অত্র এলাকাবাসী এ কাজ পাওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে আসছে। কিন্তু তাদের পাশ কাটিয়ে কাজের অনুমোদন আনায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে গোপালার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ কাওছার আলম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করি।