সিলেটে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে লাল কার্ড প্রদর্শন

14

সিলেট জেলা যৌন হয়রানি নির্মূলকরণ নেটওয়ার্কের উদ্যোগে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে লাল কার্ড প্রদর্শন ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় অগ্রগামী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এসময় প্রায় ২ হাজার শিক্ষার্থী বাল্য বিবাহকে ‘না’ বলে লাল কার্ড প্রদর্শন করে।

সিলেট জেলা যৌন হয়রানি নির্মূলকরণ নেটওয়ার্ক ও সুজনের সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, অগ্রগামী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ বাবলী পুরকায়স্থ। বক্তব্য রাখেন, এডভোকেট জাকিয়া জালাল, সহকারি প্রধান শিক্ষক মমতাজ বেগম, মিজানুর রহমান।

আরো উপস্থিত ছিলেন নেটওয়ার্কের কার্যনির্বাহী সদস্য সাংবাদিক ইউসুফ আলী, মিজানুর রহমান, মো. শাহ আলম, মুজিবুর রহমান, আলী আহসান হাবিব, ব্র্যাক জেলা ব্যবস্থাপক মো. কায়েম উদ্দিন, শিক্ষকবৃন্দের পক্ষ থেকে মোছা: লুৎফুন্নেছা, চাঁদ সুলতানা, জাহেদা গুলশান সিদ্দিকা, সুলতানা ইয়াসমিন, রাফিজা খানম, আলেহা বেগম, লায়লা নার্গিস, ঝলক রঞ্জন তালুকদার, মো. আফতাব হোসেন চৌধুরী, নেপুর চন্দ্র পাল, তরুণ কান্তি সরকার, সুলতানা রোকেয়া পারভীন, মো. আমিমুল এহছান, কৃপাময় রায়, মোছা: জেসমীন আরা বেগম, তারেক মিয়া, মো. সহিদুল আলম, শাহ সানজিদা আক্তার, জসিম উদ্দিন, নুসরাত জাহান কান্তা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বর্তমানে একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো বাল্যবিবাহ বন্ধের জন্য জাতীয় পরিকল্পনা প্রণয়ন করা। এ জন্য সরকার, এনজিও সবাই মিলে কাজ করা প্রয়োজন। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও বন্ধে শিক্ষা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এ ক্ষেত্রে মেয়েদের শিক্ষার ওপর বেশি জোর দিতে হবে। একই সঙ্গে মেয়েদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করাও জরুরি।

বক্তারা আরো বলেন, নিজেই যখন বাল্যবিবাহ সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠবেন, তখন এ ঘৃণ্য অভিশাপ থেকে নিশ্চিতভাবে শিশুরা মুক্তি লাভ করবে। যখন দেশ, জাতি, রাষ্ট্র ও সমাজ এ বিষয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে, তখন বাল্যবিবাহের আড়ষ্টতা থেকে নারীরা বেরিয়ে আসবেন এ প্রত্যাশায় বাল্যবিবাহ রোধে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।-বিজ্ঞপ্তি