নবীগঞ্জে বিস্ফোরক আইনে ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

18

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি
সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন, জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি, প্রাণহানি, ভবন ধ্বংস, আইন শৃঙ্খলা অবনতি ঘটনানোর প্রস্তুতিকালে পুলিশ ৫টি পেট্রোল বোমা উদ্ধারসহ ছাত্রদল ও যুবদলের ৪ নেতাকে আটক করেছে। গত রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শহরের ফুলকলির সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের ২৯ জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৩৫-৪০ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। নবীগঞ্জ থানার এসআই মফিজুল হক বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হগ্রেণ- ছাত্রদল নেতা হুমায়ুন কবির মুরাদ (২৬), জুয়েল মিয়া (২৬), মোর্শেদ মিয়া (২৫) ও নজির মিয়া (২৫)।

মামলার অন্যান্য আসামিরা হচ্ছেন, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক রায়েছ চৌধুরী, সোহান চৌধুরী, জাকির চৌধুরী, সাফি আহমেদ, শাহিন তালুকদার, রুকন তালুকদার, শামীম আহমদ, সানি চৌধুরী, জিয়া আহমেদ, শাহ রুহেল, সুহেল মিয়া, সামাল মিয়া, জসিম মিয়া, নুরুল আমিন, লিওর মিয়া, হেলাল উদ্দিন, মুরাদ মিয়া, নওশাদ মিয়া, জাকির ইসলাম, শয়ন মিয়া, মিটুন আহমেদ, সৈয়দ আহমদ, কাসন মিয়া, মিজানুর রহমান।

মামলার বিবরণে জানা যায়, গত শনিবার রাত পৌণে ১০ টার দিকে নবীগঞ্জ পৌর এলাকার শেরপুর রোডস্থ ফুলকলি দোকানের সামনে পাকা রাস্তার সম্মুখে সরকারের প্রতি বিদ্বেষ পূর্ণ মনোভাব নিয়ে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন, জনমনে আতঙ্ক, প্রাণহানি, ভবন ধ্বংস, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটনানোর উদ্দেশ্যে বিস্ফোরক দ্রব্য বিস্ফোরণ ঘটানোর জন্য ৬৫-৭০ জন অবস্থান নেয়।

পুলিশ এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায়।

এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে এরা পালিয়ে যাবার সময় হুমায়ুন কবির মুরাদ, জুয়েল মিয়া (২৬), মোর্শেদ মিয়া (২৫) ও নজির মিয়া (২৫)কে পুলিশ আটক করে। এ সময় তাদের নিকট থেকে ৫টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের রবিবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।