সিলেট ভেন্যুর অভিষেকে অনন্য তাইজুল ইসলাম

6

স্টাফ রিপোর্টার
চা কিংবা সাতকরার জন্য নয়, সিলেটকে সব সময়ই আলাদা করে রাখবেন টিম বাংলাদেশের বাঁহাতি অর্থোডক্স বোলার তাইজুল ইসলাম। নিজের অভিষেক টেস্টে যেমন পাঁচ উইকেট শিকার করেছেন, তেমনি সিলেট ভেন্যুর অভিষেক টেস্টে ৬ উইকেট শিকার করে নিজের জাত চিনিয়েছেন। এ যেনো অভিষেক মানেই তাইজুলের জ¦লে উঠা।

এশিয়ার একমাত্র গ্রীণ গ্যালারি সমৃদ্ধ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের টেস্ট অভিষেকের ইতিহাসে প্রথম ৫ উইকেট শিকারীর তালিকায় নিজের নাম লেখালেন। দৃষ্টিনন্দন এই স্টেডিয়ামের অভিষেক টেস্ট আজীবন মনের অলিন্দে রাখবেন তিনি। একাই জিম্বাবুয়ে দলের দর্পচূর্ণ করে দেওয়া তাইজুল সিলেট টেস্টে তুলে নিয়েছেন ছয়, ছয়টি উইকেট।

তাই এই ভেন্যু যে তাইজুলের ‘লাকীগ্রাউন্ড’ হিসেবেই বিবেচিত হচ্ছে। তাইজুল এই প্রথমবার পাঁচ বা তার বেশি উইকেট নেননি। এর আগেও তিনি পাঁচ কিংবা তার বেশি উইকেট নিয়েছেন ৩ বার। এক ইনিংসে তার শিকার ৮ উইকেট পর্যন্ত রয়েছে। কিন্তু কোনো একটি ভেন্যুর অভিষেক টেস্টে পাঁচ বা তার বেশি উইকেট পাওয়া নিশ্চয়ই তাইজুলের জন্য বাড়তি অনুপ্রেরণা।

সিলেট টেস্টের দ্বিতীয় দিনে গতকাল রোববার তাইজুলের ঘুর্ণিতেই জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংসে ২৮২ রানে গুটিয়ে গেছে। প্রথম দিন শনিবার পাঁচ উইকেটে ২৩৬ রান সংগ্রহ করেছিল সফরকারীরা। দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে মাত্র ৪৬ রান যোগ করতেই বাকি পাঁচ উইকেট হারায় তারা। এ দু’দিনে জিম্বাবুয়ে দলের ‘নীরব ঘাতক’ হয়ে উল্লাস ছড়িয়েছেন ক্রিকেটপাগল টাইগার ভক্তদের মাঝে।

২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংসটাউনে স্বাগতিকদের বিপক্ষে টেস্টে অভিষেক তাইজুল ইসলামের। অভিষেক টেস্টেই আলো ছড়িয়ে ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করেছিলেন তিনি। ওই বছরের অক্টোবরে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১৬.৫ ওভারে ৩৯ রান দিয়ে সফরকারীদের ৮ উইকেট একাই তুলে নেন তাইজুল। এরপর ২০১৫ সালের এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনায় ইনিংসে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। প্রায় তিন বছর পর ২০ টেস্টের ক্যারিয়ারের চতুর্থবারের মতো পাঁচ বা তার বেশি উইকেট পেয়েছেন তাইজুল।