এখনো গঠন হয়নি সুনামগঞ্জ ফসলরক্ষা বাঁধ প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটি

11

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
৬টি উপজেলায় হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটি (পিআইসি) এখনো গঠিত হয়নি। অন্য ৫ উপজেলায় প্রকল্প কমিটি গঠিত হলেও এখনো পূর্ণ প্রকল্প কমিটি গঠন করা সম্ভব হয়নি।
জেলায় অনুমোদিত ৫৫৩ প্রকল্প কমিটির মধ্যে গত রবিবার পর্যন্ত ২৪৩টি কমিটি গঠিত হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের মতে এ পর্যন্ত মাত্র দুটি উপজেলায় হাওররক্ষা বাঁধের কিছু কাজ চলছে।
এদিকে প্রকল্প কমিটি গঠন ও কাজে বিলম্বের কারণে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কৃষকরা।
পাউবি সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এ বছর ৫৫৩টি প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি অনুমোদন করেছে জেলা কাবিটা মনিটরিং ও বাস্তবায়ন কমিটি। গত নভেম্বরেই প্রকল্পগুলো গঠন করার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত অর্ধেক কমিটিও গঠিত হয়নি। অনুমোদিত কমিটির মধ্যে এবার সবচেয়ে বেশি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে দিরাই ও শাল্লা উপজেলায়। দিরাই উপজেলায় ১০১টি এবং শাল্লা উপজেলায় ১১৪টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
উপজেলাভিত্তিক অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে এখনো ৬টি উপজেলায় একটিও প্রকল্প কমিটি গঠন করা হয়নি। এর মধ্যে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় ৯টি, তাহিরপুর উপজেলায় ৬৬টি, বিশ্বম্ভরপুরে ১৬টি, ছাতকে ৭টি, দোয়ারাবাজারে ২৩টি, দিরাইয়ে ১০১টি অনুমোদিত প্রকল্পের মধ্যে এখনো একটি কমিটিও গঠিত হয়নি। এছাড়াও অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে ধর্মপাশা উপজেলায় ৭৪টি এবং জামালগঞ্জ উপজেলায় ৫৩টি ছাড়া আর কোনো উপজেলায় পূর্ণ প্রকল্প কমিটি গঠন করা সম্ভব হয়নি। অন্য উপজেলাগুলোর মধ্যে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ৪০টি প্রকল্পের মধ্যে ১৬টি, জগন্নাথপুরে ৫০টির মধ্যে ৪০টি, শাল্লায় ১১৪টির মধ্যে ৬০টি প্রকল্প গঠন করা হয়েছে।
কাজ শুরুর নির্ধারিত ২০দিন পর মাত্র জামালগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলা ছাড়া আর কোথাও কাজ শুরু হয়নি বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। যে উপজেলাগুলোতে এখনো প্রকল্প কমিটি গঠন করা হয়নি সে প্রকল্পগুলোতে কবে কাজ শুরু হবে জানেননা হাওরের কৃষকরা।
কৃষক নেতা অমর চাঁদ দাস বলেন, আমাদের এলাকায় এখনো প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠন হয়নি। কমিটি না হওয়ায় কবে কাজ শুরু হবে জানেনা কেউ।
এই বিলম্বে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, বিলম্বে কাজ শুরু হলে বাঁধের কাজ টেকসই হবেনা। তাই জরুরি ভিত্তিতে এখনই কাজ শুরু করতে হবে। প্রতিটি প্রকল্পে তিনি নীতিমালা অনুযায়ী বাঁধ এলাকার কৃষকদের উপস্থিতি নিশ্চিতের দাবি জানিয়ে বলেন, মধ্য স্বত্তভোগীদের এ থেকে দূরে রাখতে হবে।
পাউবি নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু বকর সিদ্দিক ভূইয়া বলেন, কয়েকটি উপজেলায় এখনো প্রকল্প গ্রহণ করা হয়নি। দুটি উপজেলায় কাজ শুরু হয়েছে। প্রকল্প গ্রহণ ও কাজ শুরুর জন্য আমরা সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়েছি।