সিলেটে ফিরছে বিপিএল : তারকামেলায় হবে দর্শক-বন্যা!

71

হাসান মো.শামীম
ক্রিকেটের জমজমাট টি টুয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বিপিএল ক্রিকেটের চলছে ষষ্ঠ আসর। ২০১৭ সালের নভেম্বরে হওয়া বিপিএলের পঞ্চম আসর যাত্রা শুরু করেছিল সিলেট থেকে। অবশ্য প্রথমদিকে বরাবরের মতো ঢাকা থেকেই বিপিএল শুরুর চিন্তা ছিল বিসিবির। কিন্তু ওই সময় ঢাকায় কমনওয়েলথ সম্মেলন থাকায় নিরাপত্তা সীমাবদ্ধতা সিলেটকে এনে দেয় বিপিএল শুরুর অপ্রত্যাশিত সুযোগ। সেই সুযোগ কাজে লাগায় সিলেট । দীর্ঘ একটি বিরতির পর ‘ক্রীড়াখরা’ কাটিয়ে বিপিএল ক্রিকেট দিয়ে গর্জে উঠে শাহজালাল-শাহপরানের পুণ্যভূমি। সে সময় প্রথাগত কোনো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান না থাকলেও বিপিএল উন্মাদনা ছড়িয়ে যায় সর্বত্র। খেলা দেখতে দর্শকদের প্রবল আগ্রহ বিপিএলকে করে তুলে আরো সৌন্দর্যমন্ডিত। সে সময় স্টেডিয়ামমুখী ক্রীড়াপ্রেমীদের ঢল ছিল দেখার মতো। প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারি ছিল হাউসফুল। সিলেটবাসীর প্রত্যাশা ছিল চলতি বিপিএলেও খেলা শুরু হবে সিলেট থেকে। কিন্তু এবার আর তা হয়নি। মিরপুরের হোম অফ ক্রিকেট থেকে যাত্রা শুরু করেছে বিপিএল। তবে এবারও কোনো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান রাখেনি বিসিবি।
সদ্য শেষ হওয়া জাতীয় নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই শুরু হয়ে যায় ক্রিকেটের দেশসেরা এই আসর। সে কারণে রাখা হয়নি কোনো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। তবে সিলেটের মতো দর্শক বন্যা হয়নি ঢাকায়। উলটো শুরুর দিন থেকেই গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু ম্যাচে দেখা গেছে খা খা গ্যালারি। পঁচিশ হাজার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন মিরপুরের দৃষ্টিকটু শূন্যতা ছিল এবারের বিপিএলের অন্যতম আলোচনার বিষয়। বিশেষজ্ঞদের মতে দুপুর সাড়ে বারোটায় ম্যাচ শুরুর কারণেই দর্শক খরায় পরেছে বিপিএল। তবে সে যুক্তিও ধোপে ঠেকেনি ম্যাচের সময় পরিবর্তনের পর। বেলা দেড়টায় প্রথম ম্যাচ শুরু করেও দর্শক টানতে পারেনি বিসিবি। বিকেলের ম্যাচগুলোতে কিছু দর্শক হলেও তাও আশানুরূপ ছিল না। অথচ সিলেট থেকে বিপিএল শুরু হলে দর্শক বন্যা হতো নিশ্চিত। কিছুদিন আগে সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে হওয়া টেস্ট ম্যাচেও দর্শক উপস্থিতি ছিল ব্যাপক। সিলেটের ইতিহাসের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে তো রীতিমত হাহাকার ছিল একটি টিকিটের জন্য। সিলেটবাসী আদতে দারুণ খেলাপাগল। তাইতো মাত্র একদিন পরে শুরু হওয়া বিপিএলকে ঘিরে ইতোমধ্যে উন্মাদনায় ভাসছেন সিলেটের ক্রিকেটপ্রেমীরা। ইতোমধ্যে খোঁজ শুরু হয়ে গেছে কখন কোথায় টিকিট পাওয়া যাবে কীভাবে পাওয়া যাবে সেই হিসেবনিকেশ। ক্রীড়া সংশ্লীষ্ট মানুষজনের কাছেও খেলা দেখতে প্রত্যাশীরা আবদার রাখছেন টিকিটের জন্য। তবে বরাবরের মতো মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে কালোবাজার। আশঙ্কা আছে এবারও ব্ল্যাকে চলে যেতে পারে বিপিএলের টিকিট। এরকম হলে সাধারণ দর্শকরা বঞ্চিত হবেন খেলা দেখা থেকে।
এবারই প্রথম সিলেটের মাটিতে পা রাখবেন ক্রিকেটের বিশ্বসেরা কয়েকজন তারকা। তাদের অন্যতম ডেভিড ওয়ার্নার, ক্রিস গেইল, স্টিভেন স্মিথ, শহিদ আফ্রিদির মত তারকা গন। এমআরআই করার জন্য অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্মিথ এম আর আই করার জন্য বর্তমানে দেশে ফিরে গেলেও তিনি দিন দুয়েকের মধ্যে আবার ফিরে আসবেন বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। তার দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস প্রথম দিনেই মাঠে নামবে স্বাগতিক সিলেট সির্ক্সাসের বিপক্ষে। সিলেটের অধিনায়ক ওয়ার্নারকে দেখতে মুখিয়ে আছেন এখানকার ক্রিকেটপ্রেমীরা। নিজেদের শহরে খেলতে নামায় দর্শকদের প্রবল সমর্থন ও পাবে সিলেট। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ফেরিওয়ালা দানব ক্রিস গেইল এবার খেলছেন রংপুর রাইর্ডাসের হয়ে। সিলেটে রংপুর খেলবে দুটি ম্যাচ। সিলেট পর্ব শুরুর দ্বিতীয় দিনের শেষ ম্যাচে প্রথমবার মাঠে নামবেন গেইল। সিলেটের বুকে তার বিধ্বংসী ব্যাটিং চোখের সামনে দেখাটাও অনেক ক্রিকেটপ্রেমীর কাছে আকশের চাঁদ হাতে পাওয়ার মতো। পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার আফ্রিদি বর্তমান বিশ্বে ১৯৯৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ খেলা একমাত্র ক্রিকেটার। তার সমসাময়িক সব খেলোয়াড়েরা অবসরে গিয়ে ভিন্ন কাজে জড়িয়ে গেছেন। কিন্তু বিস্ময়করভাবে আফ্রিদি এখনো ক্রিকেট খেলছেন। এক সময় ওয়ানডে ক্রিকেটের দ্রুততম সেঞ্চুরির মালিক ছিলেন আফ্রিদি। সেই আফ্রিদিকে এবারই প্রথমবারের মতো খেলতে দেখবেন সিলেটের দর্শকরা। তাইতো বিপিএল নিয়ে উন্মাদনার পারদ বাড়ছে দ্রুতগতিতে। এছাড়া পাঁচ বছর নিষিদ্ধ থাকা আশরাফুলও এবার বিপিএলে খেলছেন। যদিও তার দল চিটাগাং ভাইকিংস সিলেটে খেলবে মাত্র একটি ম্যাচ। তাও সিলেট পর্বের একদম শেষ ম্যাচ হবে তা। সে ম্যাচে দলে জায়গা পেলে আশরাফুলকেও দীর্ঘদিন পরে এখানে খেলতে দেখা যাবে। এই মাঠে জাতীয় লিগের ম্যাচে দুর্দান্ত একটি সেঞ্চুরি আছে আশরাফুলের। দেশীয় ক্রিকেটের সেরা তারকা সাকিব তামিম মুশফিক মাহমুদুল্লাহ তো আর আছেনই। সংসদ সদস্য হও্যার আগে সিলেটে বাংলাদেশের বুকে শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে গেছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। নির্বাচনে জিতে তিনি সংসদের আইনপ্রণেতা। তার শেষের শুরুতে আবার তাই জড়িয়ে যাচ্ছে সিলেটের নাম। গেইলদের তো নেতৃত্ব দিচ্ছেন এম পি মাশরাফিই!
সব মিলিয়ে বলা চলে সিলেটের দর্শকদের জন্য অপেক্ষা করছে চারদিনের জমজমাট ক্রিকেট প্যাকেজ। ক্রিকেটের রথীমহারথীদের দেখতে এবার গ্যালারিতে যে দর্শক বন্যা হবে তা নিশ্চিত ! সিলেটবাসী এখন সেই অপেক্ষাতেই মগ্ন।