গোয়াইনঘাটে গৃহবধূকে ধর্ষণ একমাস পর মামলা রেকর্ড করেছে পুলিশ

21

স্টাফ রিপোর্টার:
গোয়াইনঘাটে বিয়ের প্রলোভনে এক গৃহবধূকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে দীর্ঘ একমাস পর মামলা রেকর্ড করছে থানায় পুলিশ। অভিযোগ দায়েরের পর মামলা রেকর্ড না করায় হতাশ হয়ে পড়েছিলেন ধর্ষিতাসহ তার স্বজনরা। থানা পুলিশ ওসিসি থেকে পাঠানো ধর্ষিতার অভিযোগের দীর্ঘ তদন্ত করে অবশেষে একমাস পর মামলাটি রেকর্ড করে।
মামলার আসামিরা হলেন, উপজেলার পাঁচপাড়া ছিল্লাগ্রামের আবদুস সামাদ (২৫), আলীম উদ্দিন (৪০), মাহমদ আলী (৪২) ও ওয়াহিদ উল্লাহ (২৮)। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, পূর্ব পরিচয়ের সুবাধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ৯ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ধর্ষিতাকে সিএনজি অটোরিকশায় করে সামাদ অপহরণ করে তার বাড়িতে নিয়ে আটকে ধর্ষণ করে। এদিকে অপহরণের খবর পেয়ে ধর্ষিতার ভাই ও স্বজনরা উদ্ধার করতে গেলে তাদের মারধর করে তাড়িয়ে দেয় আসামিরা। পরে পুলিশের সহায়তায় সামাদের বাড়ি থেকে ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়। ভিকটিম আরো অভিযোগ করেন, এর আগে দীর্ঘদিন ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে আসছিল সামাদ।