নগরীতে ছিনতাই রুখতে গোয়েন্দা পুলিশের ১৬ টিম

62

নুরুল হক শিপু:
সিলেট মহানগরীতে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় ছিনতাইয়ের ঘটনা। পথচারী ও রিকশাযাত্রীরা প্রায়ই শিকার হন ছিনতাইকারীদের। এমন পরিস্থিতিতে নড়েচড়ে বসেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। ছিনতাইকারীদের ধরতে ইতোমধ্যে গঠন করা হয়েছে ১৬টি টিম।
গত ৯ মার্চ বিকেলে কিন ব্রিজ হয়ে সিলেট রেল স্টেশনে যাচ্ছিলেন সাথী আক্তার (২৭) নামে তরুণী। পথে রিকশার গতিরোধ করে তার ভ্যানেটি ব্যাগ ও মোবাইল নিয়ে পালিয়ে যায় তিন ছিনতাইকারী। তরুণির চিৎকারে অদূরে টহলে থাকা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তৎক্ষণাৎ ধাওয়া দিয়ে দুলাল মিয়া নামে এক ছিনতাইকারীকে আটক করতে সক্ষম হয়। উদ্ধার করা হয় ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত চাকু, ছিনতাই করা ভ্যানিটি ব্যাগ, মোবাইল এবং নগদ টাকা।
প্রবাসীবহুল পর্যটন নগরী সিলেটে এরকম ছোটবড় ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে অহরহ। কালেভদ্রে ছিনতাইকারী আটক হলেও ছাড়া পাচ্ছেন জামিনে। ছিনতাইয়ের সাথে সাথে পুলিশের তৎপরতাও বিরল। অনেক সময় ছিনতাইয়ের শিকার ব্যক্তি যান না পুলিশের কাছেও। তবে সাম্প্রতিক সময়ে বিশেষ তৎপরতা শুরু করেছে সিলেট মহানগর পুলিশ (এসএমপি)।
এসএমপি সূত্র জানায়, সিলেটকে ছিনতাইমুক্ত নগরী করতে কাজ শুরু করেছে পুলিশ। ছিনতাই প্রতিরোধে এজন্য তৈরি করা হয়েছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের ১৬টি বিশেষ টিম।
মহানগর এলাকার বিভিন্ন মোড়ে ছিনতাই তৎপরতা বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে মহানগর পুলিশের কমিশনার গোলাম কিবরিয়ার নির্দেশনায় ছিনতাই প্রতিরোধি দলগুলো পরিচালিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সিলেট মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার সঞ্জয় সরকার। তিনি জানান, গত ৪ মার্চ থেকে টিমগুলো নগরীর বিভিন্ন মোড়ে সাধারণ ও পুলিশি পোষাকে কাজ শুরু করছে। এর পর থেকে এখন পর্যন্ত নগরীতে কোনো ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেনি। তবে এটিকে একমাত্র সাফল্য দাবি না করে তিনি বলেন, ছিনতাই প্রতিরোধে প্রয়োজন সবার সহযোগিতা। সিলেট একটি প্রবাসীবহুল এবং পর্যটন নগরী তাই এখানে সবার নিরাপত্তা অত্যন্ত প্রয়োজন। গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে টহলসহ গোয়েন্দা পুলিশের টিমগুলো ছিনতাইকারী চক্রের মধ্যে সেই ভীতি তৈরি করতে চায় যে, এখানে ছিনতাই করে পার পাওয়া যাবে না। এজন্য ছিনতাইয়ের পুরোনো মামলাগুলোও বিশেষ নজরে রাখা হচ্ছে। পুলিশের কাছে থাকা ছিনতাইকারীদের নিয়মিত তালিকা হালনাগাদ করে অভিযান চালানো হচ্ছে।
অভিযানে গত কয়েকদিনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কয়েকজন ছিনতাইকারী। গত ৫ মার্চ সুবিদবাজার থেকে তাসরিমুল ইসলাম লামি নামের এক ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ, ৮ মার্চ কুয়ারপাড় থেকে সৈয়দ মোস্তফা কামরুল, মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাস ও খায়রুল ইসলাম রায়নহান নামের তিন ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। ১১ মার্চ তালতলা থেকে অজ্ঞান পার্টির সদস্য আব্দুস শহিদ এবং একইদিন শিবগঞ্জ থেকে শাহরিয়ার সুমন শাহীন, রুবেল ও আব্দুস সামাদ নামের তিন ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।
সিলেট মহানগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপকমিশনার জেদান আল মুসা জানান, সিলেট নগরীতে ছিনতাইকারীদের উৎপাত ক্ষোভ বাড়াচ্ছিল নগরবাসীর মনে। সম্প্রতি ছিনতাইকারীদের উৎপাত বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ছিনতাই প্রতিরোধ এবং তালিকাভুক্ত ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারে বিশেষ অভিযান শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় মহানগর পুলিশ। এ লক্ষ্যে গঠন করা হয়েছে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ১৬টি টিম। সকাল থেকে গভীর রাত অবধি এসব টিম মাঠে কাজ করছে। মিলছে সফলতাও। ছিনতাই প্রতিরোধে পোশাকধারী পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি সাদাপোশাকের সদস্যরাও সক্রিয় রয়েছেন। কেউ ছিনতাইয়ের শিকার হলে ৯৯৯ অথবা পুলিশ কন্ট্রোল রুমের ০১৭১৩৩৭৪৩৭৫ নাম্বারে যোগাযোগেরও অনুরোধ জানান তিনি।