দুঃস্বপ্নের অধ্যায়ের একটি পাতা কমল রিয়ালের

12

খেলা ডেস্ক
‘যাক বাবা, একটা কমল।’ রিয়াল মাদ্রিদের সব খেলোয়াড় ও রিয়াল সমর্থকদের মাথায় হয়তো এখন এটাই খেলছে। গতকাল লেগানেসের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে এসেছে রিয়াল। কেমন খেলেছে স্প্যানিশ পরাশক্তিরা? সে প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে গোল ডট কমের শিরোনাম, এ মৌসুমে রিয়ালের খেলা দেখে সময় নষ্ট করবেন না। এতটাই বাজে খেলছে টানা তিনবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা একটি দল!

গোলের শিরোনাম একপেশে মনে হতে পারে। কিন্তু বাস্তবতা হলো, জিনেদিন জিদানের প্রত্যাবর্তনের পরও একমাত্র করিম বেনজেমা ছাড়া কারও মাঝে কোনো চেষ্টার দেখা নেই। একসময় রিয়াল মানেই ছিল ৯০তম মিনিটে লড়াই করে যাওয়া। সেটা এ মৌসুমে মাত্র একজনই দেখাতে পারছেন, করিম বেনজেমা। কালও বেনজেমায় ভর করে লজ্জা এড়িয়েছে রিয়াল। আবারও রিয়ালের একমাত্র গোল ভরসা হিসেবে দেখা দিয়েছেন বেনজেমা। জিদানের অধীনে কাসেমিরো, মার্কো অ্যাসেনসিও, ভারানে ও মদরিচরাও ধীরে ধীরে উন্নতি করছেন। কিন্তু সে ধারাটা এতই ক্ষীণ যে রিয়ালের ম্যাচ দেখার আগ্রহ জন্মাতে দিচ্ছে না।
এ মৌসুমে রিয়ালের আর পাওয়ার কিছু নেই। তিনটি শিরোপা থেকেই ছিটকে গেছে তারা। ঝামেলাটা বাড়াচ্ছে, এ মৌসুম থেকে হারানোরও কিছু নেই তাদের! লিগে দ্বিতীয় হওয়ার ইচ্ছে জানালেও, বাস্তবতা হলো এতে কিছুই যায় আসে না। আর পঞ্চম স্থানে থাকা গেটাফে ১০ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে। ছয় ম্যাচে সে ব্যবধান কমিয়ে রিয়ালকে টপকে যাওয়া প্রায় অসম্ভব মাদ্রিদের অন্য দলটির। ফলে রিয়ালের খেলোয়াড়দের মাঝে কোনো তাগাদাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে রিয়ালের জন্য লিগের এক একটি ম্যাচ মানেই, একটি করে ঝামেলা কমা। অন্তত আগামী মৌসুমের দলে টিকে থাকার লড়াই হওয়ার কথা ছিল খেলোয়াড়দের মাঝে। বেনজেমা ছাড়া আর কারও মাঝে সে চেষ্টা নেই। অথচ স্কোয়াডে থাকা ২৩ জনের মধ্যে ভিনিসিয়ুস ছাড়া শুধু বেনজেমারই আগামী মৌসুমে দলে থাকা নিশ্চিত।

এ মৌসুমে রোনালদোর অনুপস্থিতিতে ২৭ গোল করে ফেলেছেন বেনজেমা। লা লিগাতেই ১৮ গোল। রিয়ালের সর্বশেষ পাঁচ গোলেই বেনজেমার অবদান আছে। আগামী ৬ ম্যাচে ৬ গোল করলেই রিয়ালের হয়ে ক্যারিয়ার সেরা পারফরম্যান্স হয়ে যাবে। কিন্তু দলের অন্যরা রিয়ালের হয়ে সম্ভবত সবচেয়ে বাজে মৌসুম কাটাচ্ছেন। জিনেদিন জিদান অকপটে সেটা স্বীকার করেছেন, ‘প্রথমার্ধে যা দেখেছি, ভালো লাগেনি। দ্বিতীয়ার্ধ অনেক ভালো ছিল। আমরা এর চেয়ে অনেক ভালো করতে পারি।’

মৌসুম শেষে অনেক রদ বদলের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু জিদানের দাবি এ দলের পক্ষেই সম্ভব ভালো কিছু করা, ‘আমাদের চেষ্টা করতে হবে। আমাদের যে খেলোয়াড় আছে, তাতে আরও ভালো খেলা উচিত। যত বাজে মৌসুমই হোক, আমাদের আরও চেষ্টা করতে হবে। আগামী মৌসুমে আবারও প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হয়ে উঠবে এ দল, তবে এখনো ছয় ম্যাচ বাকি আছে এবং আমাদের সেগুলোতেও চেষ্টা করতে হবে ভালো করার।’

রিয়াল খেলোয়াড়দের শরীরী ভাষায় যে এই ‘চেষ্টা’ শব্দটাই হারিয়ে গেছে এ মৌসুমে!