সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে অবরোধ কালও

11

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আজ বুধবার আড়াই ঘণ্টা শাহবাগ মোড় অবরোধ করে রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী। আগামীকাল বৃহস্পতিবার আবারও শাহবাগ অবরোধ করবেন বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে জড়ো হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সেখান থেকে মিছিল নিয়ে শাহবাগ মোড়ে যান কয়েকশ শিক্ষার্থী। তাঁরা শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করলে ওই এলাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়, তৈরি হয় তীব্র যানজট।

অধিভুক্তি বাতিল হওয়ার আগ পর্যন্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের আলাদা সনদ দেওয়ার দাবিও জানান আন্দোলনকারীরা।

অবরোধের নেতৃত্বে থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তারেকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ‘সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আজ আমরা শাহবাগ মোড় অবরোধ করেছি। আজকের মতো অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়েছে। কাল আবারও একই দাবিতে আমরা শাহবাগে অবস্থান নেব। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের কর্মসূচি চলবে।’

তারেক অভিযোগ করেন, সাত কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রমে ধীর গতি দেখা দিয়েছে। নিয়মিত পাঠদান ও ফল প্রকাশেও ব্যাঘাত ঘটছে। তাই অবিলম্বে সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিল করা দরকার।

প্রসঙ্গত, শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর সাতটি সরকারি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করে সরকার। কলেজগুলো হলো ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা মহিলা কলেজ, মিরপুর বাঙলা কলেজ ও তিতুমীর কলেজ। এরপর থেকে সেশনজট নিরসনসহ বিভিন্ন দাবিতে কয়েক দফায় আন্দোলনে নামেন কলেজগুলোর শিক্ষার্থীরা।

এদিকে ভালো পরীক্ষা দিয়েও গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার অভিযোগ তুলে প্রমোশনসহ চার দফা দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করেন সাত কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিশেষ পরীক্ষার আশ্বাসে তাঁরা আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়ান।

এর আগে গত ৮ জুলাই ৯০ দিনের মধ্যে সব বিভাগের ফল একসঙ্গে প্রকাশ, সেশনজট নিরসনে একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশ ও ক্রাশ প্রোগ্রাম চালু এবং সাত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন নির্মাণসহ পাঁচ দফা দাবিতে নীলক্ষেতে সড়ক অবরোধ করেন সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের আশ্বাসে সেদিন তাঁরা ফিরে যান।