২০ মাসব্যাপী ভ্রাম্যমাণ ‘বঙ্গবন্ধু বইমেলা’ ৩১ জুলাই থেকে

18

সবুজ সিলেট ডেস্ক
‘বঙ্গবন্ধুকে জানো-দেশকে ভালোবাসো’ এই স্লোগানে শ্রাবণ প্রকাশনী শুরু করতে যাচ্ছে ২০ মাসব্যাপী পৃথিবীর দীর্ঘতম ভ্রাম্যমাণ বইমেলা। আগামী ৩১ জুলাই থেকে শুরু হতে যাওয়া এই বই মেলাই থাকছে ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’ সহ ১০০টি নির্বাচিত বই।
রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে বিকেল ৪টায় এই বল মেলার উদ্বোধন করবেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।
এছাড়া বিশেষ অতিথি থাকবেন কথাশিল্পী সেলিনা হোসেন। বক্তব্য রাখবেন সাংবাদিক ও লেখক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, কালের কণ্ঠ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহসাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।
অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা কবিতা আবৃত্তি করবেন রূপা চক্রবর্তী, নাজমুল আহসান, মাসুম আজিজুল বাসার, শামীম আরা মুন্নী, তামান্না সারোয়ার, কাজী বুশরা আহমেদ তিথি ও পলি পারভীন।
দেশের সকল জেলা উপজেলার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে পর্যায়ক্রমে অবস্থান করবে এই বইমেলার গাড়ি। ১০০ বই দিয়ে সাজানো হচ্ছে ’শ্রাবণ বইগাড়ি’। শ্রাবণ বইগাড়িতে একটি ডিজিটাল বোর্ড লাগানো হয়েছে যার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ, সাক্ষাৎকার ও তাকে নিয়ে প্রচারিত গান, কবিতা, তথ্যচিত্র এবং বইয়ের বিজ্ঞাপন দেখানো হবে তৃণমূল পর্যায়ে।
এর আগে শ্রাবণ প্রকাশনী গত আগস্টে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রচিত ও প্রকাশিত বই নিয়ে একমাসের ভ্রাম্যমাণ বইমেলার আয়োজন করে। পাশাপাশি গত ডিসেম্বর থেকে জুলাই ২০১৯ শ্রাবণ প্রকাশনী মুক্তিযুদ্ধের ৪ শ নির্বাচিত বইনিয়ে মুক্তিযুদ্ধের ভ্রাম্যমাণ বইমেলা পরিচালনা করে। যা দেশের ছয়টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘুরে আসে। জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ওপর শ্রাবণ প্রকাশিত ১০টি বই আছে। এছাড়া জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে আরও ১০টি বই প্রকাশিত হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষকে সামনে রেখে আয়োজিত এই বইমেলায় শ্রাবণ প্রকাশিত বই ৪০ ভাগ ছাড়ে বিক্রি হবে এবং অন্যান্য প্রকাশনীর বই ২৫ ভাগ ছাড়ে বিক্রির ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। মূলত ফেসবুকের মাধ্যমে সারাদেশে একটি বড় নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা হয়েছে এই এই দীর্ঘ বইমেলার। যা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ভালো বইগুলোর পাঠক তৈরিতে সহায়তা করবে।