শহিদুল আলমের মামলার তদন্ত কাজ স্থগিতই থাকছে

7

সবুজ সিলেট ডেস্ক
আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে দায়ের করা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলার তদন্ত কাজ স্থগিত করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।
একইসঙ্গে মামলার বিষয়ে জারি করা রুল আগামী ১৮ ডিসেম্বরের মধ্যে নিস্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন নিষ্পত্তি করে গতকাল রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
আদালতে শহিদুল আলমের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ, ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।
গত ১৪ মার্চ শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে দায়ের করা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলার তদন্ত কার্যক্রম ৩ মাসের জন্য স্থগিত করেন বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট। পরে এ আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষ। মামলার তদন্ত কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে গত ৪ মার্চ হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন শহিদুল আলম।গত বছরের ১৫ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে জামিন দেন হাইকোর্ট। তার জামিন বিষয়ে রুল যথাযথ ঘোষণা করে বিচারপতি শেখ আব্দুল আউয়াল ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তী এই রায় ঘোষণা করেন। গত বছরের ১২ আগস্ট তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। ৬ আগস্ট রমনা থানায় করা মামলায় শহিদুল আলমের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্রদের আন্দোলনের সময় আল-জাজিরায় প্রচারিত শহিদুল আলমের সাক্ষাৎকারের ভিডিও এবং ফেসবুক লাইভের পর ধানমন্ডির বাসা থেকে গ্রেপ্তার হন শহিদুল আলম। সাতদিনের রিমান্ড শেষে নিম্ন আদালতের আদেশে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। গ্রেপ্তারের একশ ৭ দিন পর মুক্তি পান তিনি।