সিলেটে ঈদে ৩শ কোটি টাকার পর্যটন ব্যবসা

38

দিপু সিদ্দিকী
পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটিতে সিলেটে পর্যটকের ঢল নেমেছিল। লম্বা ঈদের ছুটিতে সিলেটের হজরত শাহজালাল (রহ.), শাহপরান (রহ.) মাজার, জাফলং, বিছানাকান্দি, রাতারগুলসহ বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ছিল মুখরিত। ট্যুরিস্ট পুলিশের হিসেবে ঈদের ছুটিতে প্রায় ৬ লাখ পর্যটক সিলেট ভ্রমণ করেন। আর এ ভ্রমনের কারণে সিলেটে ঈদ পর্যটনে অন্তত ৩শ কোটি টাকার পর্যটন ব্যবসা হয়েছে।
নদী, পাহাড়, টিলা, হাওড় আর ৩৬০ আউলিয়ার পূণ্যভূমি হিসেবে বিশ্বে সিলেটের পরিচিতি। এখানে রয়েছে প্রকৃতিকন্যা জাফলং, যেখানে মেঘালয়ের বুক চিড়ে নেমে এসেছে স্বচ্ছ জলধারার পিয়াইন নদী কিংবা বিছানাকান্দির পাথররাজ্যের বিছনাকান্দি ছড়ার সৌন্দর্য। এছাড়া দেশের একমাত্র জলারবন রাতারগুলে সৌন্দর্য দেখতে সারাবছরই পর্যটক ও দর্শনার্থীদের আনাগোনা লেগে থাকে। একটু লম্বা ছুটি পেলেই পর্যটকরা কক্সবাজারের পর সিলেটমুখী হন বেশিরভাগ সময়।
এবারের ঈদুল আজহার লম্বা ছুটিতে প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য দেখতে সিলেটে ভিড় বাড়ে পর্যটকদের। চোখের ক্ষুধা মেটাতেই তারা সিলেটের জাফলং, বিছানাকান্দি, রাতারগুল, লালাখাল, জৈন্তাপুর, সাদাপাথর ঘুরে বেড়িয়েছেন। এছাড়া সিলেট নগরীতে হজরত শাহজালাল (রহ.) মাজার, হজরত শাহপরান (রহ.) মাজার, চা-বাগানও ঘুরে বেড়িয়েছেন। এ সময় তারা সিলেটের বিভিন্ন হোটেলে অবস্থানের পাশাপাশি কেনাকাটাও করেছেন। ফলে সিলেটের অর্থনীতিতে পর্যটনের ব্যাপক প্রভাব পড়েছে।
এদিকে ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে এবারে সিলেটের আবাসিক হোটেল ব্যবসার জমজমাট ছিলো। তবে ঈদুল আজহার লম্বা ছুটিকে ব্যবসার মৌসুম ধরে নিয়েই পর্যটকদের জন্য কোনো ধরণের ছাড়ের ব্যবস্থা রাখেননি। তারা বলছেন, লম্বা ছুটি পেলেই পর্যটকরা সিলেটমুখী হন। অফসিজনে ছাড় দেওয়া হলেও পর্যটনের ভরা মৌসুমে কোনো ধরণের ছাড়ের চিন্তাও করা যায় না। এটা শুধু সিলেটে নয়, সারাদেশের কোথাও পর্যটন মৌসুমে কোনো ছাড় দেওয়া হয় না।
ট্যুরিস্ট পুলিশ সিলেট জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ কে এম মোশাররফ হোসেন বলেন, ঈদের লম্বা ছুটিতে সিলেটের পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে প্রায় ৬ লাখ পর্যটক ঘুরতে এসেছিলেন। ঈদের ছুটিতে পর্যটকদের সর্ব্বোচ্চ নিরাপত্তা প্রদান করা হয়েছে।
সিলেট চেম্বারের প্রশাসক আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, ঈদুল আজহার ছুটিতে সিলেটে বেড়াতে আসা পর্যটকরা বিভিন্ন সেবাগ্রহণসহ সিলেটে অবস্থান ও কেনাকাটা, খাবারসহ প্রায় ৩শ কোটি টাকা খরচ করেছেন বলে জানিয়েছেন সিলেট চেম্বারের প্রশাসক আসাদ উদ্দিন আহমদ। তিনি বলেন, সিলেটে এবার প্রায় ৩শ কোটি টাকার পর্যটন ব্যবসা হয়েছে। এতে সরকারও বিপুল পরিমাণ রাজস্ব পেয়েছে।
সিলেটের সকল পর্যটন কেন্দ্রগুলোকে আরো উন্নয়নের মাধ্যমে সিলেটকে পর্যটন নগরী ঘোষণার দাবি সংশ্লিষ্টদের।