সিলেটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের যেতেই হবে, তাদের আর খাওয়াতে পারব না

25

স্টাফ রিপোর্টার
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, সব প্রস্তুতি চূড়ান্ত করা সত্ত্বেও আমরা রোহিঙ্গাদের ফেরাতে পারিনি। তবে তাদের ফিরে যেতেই হবে। তাদের আর বসিয়ে বসিয়ে আমরা খাওয়াতে পারব না।
গতকাল শুক্রবার সিলেট সফরে এসে ওসমানী আন্তজার্তিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। গতকাল শুক্রবার বিকেলে তিনি দু দিনের সফরে সিলেট আসেন।
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ব্যর্থতা প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ওদের জন্যে মিয়ানমার শান্তিতে ও নিরাপদে থাকার ব্যবস্থা করেছে। সেটা তাদের বুঝাতে পারিনি। এজন্য খারাপ লাগছে। তবে আমি সবসময় আশাবাদী। আমি মনে করি রোহিঙ্গাদের পাঠাতে পারবো। এজন্য সময় লাগবে।
মিয়ানমারের উপর আরও চাপ সৃষ্টি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করেছি বলেই তারা নিতে রাজি হয়েছে। যথেষ্ট চাপ সৃষ্টি করেছি। যারা এতদিন তাদের পক্ষে কথা বলতো তারাও এখন আমাদের পক্ষে কথা বলছে। তারপরও রোহিঙ্গারা যায়নি। মিয়ানমার আমাদের কাছে অঙ্গীকার করেছে ফিরয়ে নেওয়ার। এখন আরও চাপ সৃষ্টি করতে হবে। আমরা তাদের উপর চাপ সৃষ্টির জন্য যা যা করার করবো।
মন্ত্রী বলেন, আমরা এখন মায়ানমারকে বলব, তোমরা এখন বিশ্বস্থতা অর্জন করতে পারোনি। রোহিঙ্গা নেতাদের রাখাইন নিয়ে তাদের জন্য কী ব্যবস্থা করা হয়েছে ঘুরিয়ে দেখানোর প্রস্তাব দেব মায়নমারকে। সেখানে ১০০ টি বাড়ি বানিয়ে দিয়েছে চীন। ২৫০ বাড়ি বানিয়ে দিয়েছে ভারত। সেটা নেতাদের দেখালে তারা হয়তো ফিরে যেতে রাজি হবে। মিডিয়াকর্মীদেরও রাখাইন গিয়ে সেখানকার তথ্য সংগ্রহ করে প্রচারের আহ্বান জানান মন্ত্রী। ড. মোমেন বলেন, রোহিঙ্গারা যে দাবিগুলো আমাদের কাছে করেছে, সেটা তাদের দেশে গিয়ে তাদের নিজেদেরই অর্জন করতে হবে।
রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবসনে রাজী করাতে না পারা কূটনৈতিক ব্যর্থতা, বিএনপি এমন মন্তব্য প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা রোহিঙ্গাদের ফেরাতে পারিনি, এটা সত্য। তবে এদের ফেরানো হবে। কবে যাবে জানি না। তবে বিএনপির যদি ভালো কোনো পথ থাকে তবে তাদের আমরা স্বাগত জানাই।