ফেসবুকে সাম্প্রদায়িক উসকানি দিলে কঠোর ব্যবস্থা: আইজিপি

6

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, সনাতনী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক উসকানি চালালে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ সদর দপ্তরে সম্মেলন কক্ষে আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কিত এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে আইজিপি এ কথা বলেন।

সভায় র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, অতিরিক্ত আইজিপি (এএন্ডও) মইনুর রহমান চৌধুরী, রেলওয়ে রেঞ্জের অতিরিক্ত আইজিপি মহসিন হোসেন, শিল্পাঞ্চল পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি আবদুস সালাম, এসবি প্রধান মীর শহীদুল ইসলাম, সিআইডি প্রধান মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, টিএন্ডআইএম’র অতিরিক্ত আইজিপি ইকবাল বাহার, হাইওয়ে রেঞ্জের অতিরিক্ত আইজিপি মাহাবুবুর রহমান, বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত ও সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জি, ঢাকা মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি শৈলেন্দ্র নাথ মজুমদার, রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ স্বামী শান্তিকায়নন্দসহ এনএসআই, ডিজিএফআই, আনসার ও ভিডিপি, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় পুলিশ প্রধান বলেন, কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠী ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের লক্ষ্যে ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা চালালে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ সময় প্রতিমা তৈরির সময় স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ, পূজা মণ্ডপে সিসি ক্যামেরা ও অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র স্থাপন এবং হ্যান্ড মেটাল ডিটেক্টর ব্যবহারের জন্য পূজা উদ্‌যাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সভায় এআইজি (অপারেশনস) সাঈদ তারিকুল হাসান দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে গৃহীত সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা তুলে ধরেন।

সভায় উপস্থিত পূজা উদ্‌যাপন পরিষদ নেতৃবৃন্দ জানান, এ বছর সারা দেশে প্রায় একত্রিশ হাজারের বেশি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।