তাহিরপুরে লাল শাপলার স্বর্গরাজ্যে

19

সবুজ সিলেট ডেস্ক:
অদূরে ভারতের মেঘালয় পাহাড়, স্বচ্ছ জলের উপর ভাসমান সবুজ পাতায় শেওলা ধরা রঙ, এর মাঝেই মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো লালচে শাপলা।

পাখির কোলাহল, শিশুদের দুরন্তপনা আর বিস্তৃত হাওরের বিশালতা, এ যেন আমার শৈশব, যেন নীল আকাশের নিচে লাল শাপলার রাজ্য। বলছিলাম তাহিরপুরের বিকিবিল হাওরের কথা।

শুল্ক মৌসুমে ধান চাষ আর বর্ষার মৌসুমে শাপলার রাজত্ব। সব মিলিয়ে বর্ষায় এ হাওর হয়ে উঠে লাল শাপলার গালিচা। অবাক করা সবুজ পাতার বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা ফুটন্ত শাপলা যেন, আগন্তুক পর্যটকদের হৃদয়ে শান্তির পরশ বিলায়।

তাইতো তরুণ মন ঘুনঘুনিয়ে গেয়ে উঠে জহির রায়হানের সেই গান, তুমি সুতোয় বেঁধেছ শাপলার ফুল নাকি তোমার মন ? আমি জীবন বেঁধেছি মরণ বেঁধেছি ভালবেসে সারক্ষণ।

তাইতো তরুণ মন ঘুনঘুনিয়ে গেয়ে উঠে জহির রায়হানের সেই গান, তুমি সুতোয় বেঁধেছ শাপলার ফুল নাকি তোমার মন ? আমি জীবন বেঁধেছি মরণ বেঁধেছি ভালবেসে সারক্ষণ।

আর তাহিরপুর উপজেলার ইউনিয়নের উত্তর বড়দল ইউনিয়নের কাশতাল গ্রামের পাশের বিকিবিল হাওর স্থানীয়দের কাছে শাপলার গ্রাম হিসেবেই পরিচিত।

আর এই লাল শাপলার রাজ্য ঘুরতে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকরা ভিড় জমান। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পর্যটকরা হারিয়ে যান লাল শাপলার রাজ্যে। বিশেষ করে সকালে সৌন্দর্য পর্যটকদের আকৃষ্ট করে আর ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের অপরূপ সৌন্দর্য ফলে এ বিলটিকে আকর্ষণীয় করে তুলেছে।

আর এই লাল শাপলার রাজ্য ঘুরতে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকরা ভিড় জমান। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পর্যটকরা হারিয়ে যান লাল শাপলার রাজ্যে। বিশেষ করে সকালে সৌন্দর্য পর্যটকদের আকৃষ্ট করে আর ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের অপরূপ সৌন্দর্য ফলে এ বিলটিকে আকর্ষণীয় করে তুলেছে।

হাওরের পাশের গ্রামের বাসিন্দা মাসুক মিয়া বলেন, কোন প্রকার চাষাবাদ ছাড়াই জন্মেছে লাল শাপলাগুলো। গোটা এলাকা জুড়ে এখন লাল শাপলার অপরূপ দৃশ্য দেখা যায়। বর্ষার শুরুতে শাপলা জন্ম হলেও হেমন্তের শিশির ভেজা রোদ মাখা সকালের জলাশয়ে চোখ পড়লে রং-বেরংয়ের শাপলার বাহারি রূপ দেখে চোখ জুড়িয়ে যায়। মনে হয় কোন এক সাজানো ফুল বাগানের মধ্যে স্রষ্টার শ্রেষ্ঠ জীব হিসেবে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করছি। এদৃশ্য চোখে না দেখলে বোঝানো যাবে না।

আর আশরাফুল আলম আকাশ বলেন, এই হাওরে আমারও জমি আছে। বর্ষা মওসুমের শুরুতে ফুল ফোটা শুরু হয়। প্রায় ছায় মাস বিল ঝিল জলাশয় ও নিচু জমিতে প্রাকৃতিক ভাবেই জন্ম নেয় লাল শাপলা। রান্নাবান্নার তরকারি হিসেবে ও বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে সংগ্রহের কারণে সাদা শাপলার সংখ্যা দিন দিন সংকীর্ণ হচ্ছে। এই লাল সাদা সব ধরনের শাপলা ফুলের ঘ্রাণে গোটা হাওর মুখরিত হয়ে উঠে।

তিনি আরো জানান, বাড়তি জনগণের চাপের কারণে আবাদি জমি ভরাট করে বাড়ি, পুকুর মাছের ঘের বানানো এবং অপরিকল্পিত ভাবে জমিতে সার প্রয়োগের ফলে এ পরিমাণ যেমন কমেছে তেমনি শাপলা জন্মানোর জায়গা ও কমে আসছে।