বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতনেও ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

14

সবুজ সিলেট ডেস্ক
সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস গতকাল মঙ্গলবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমলেও সবকটি মূল্যসূচক বেড়েছে। এর মাধ্যমে চলতি সপ্তাহের তিন কার্যদিবসেই ঊর্ধ্বমুখী থাকল শেয়ারবাজর।
এদিন শুরুতেই লেনদেনের অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ে। এতে লেনদেনের প্রথম ঘণ্টায় বড় উত্থানের আভাস পাওয়া যায়। কিন্তু দুপুর ১২টার পর লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ইউনিটের দাম কমতে থাকে। ফলে নিম্নমুখী হয়ে পড়ে সূচক। যদিও দিনের লেনদেন শেষে সবকটি মূল্যসূচক ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে।
সূচকের উত্থান হলেও এদিন ডিএসইতে যে কয়কটি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে তার থেকে বেশি। দিনভর ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১২৪টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৭৪টির। অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির দাম।
বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার পরও ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স দশমিক ৩৫ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৭২২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ ১ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ৯ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৬৬১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
সবকটি মূল্যসূচকের উত্থান হলেও ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ কিছুটা কমেছে। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩৮০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৪০৯ কোটি ৬১ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ২৮ কোটি ৭৮ লাখ টাকা।
বাজারটিতে টাকার পরিমাণে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে গ্রামীণফোনের শেয়ার। কোম্পানিটির ২৪ কোটি ১১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ন্যাশনাল টিউবসের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৪ কোটি ৫৩ লাখ টাকার। ৮ কোটি ৭৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক।
এ ছাড়া লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে-সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স, স্টাইল ক্রাফট, মুন্নু জুট স্টাফলার্স, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস, নিটল ইন্স্যুরেন্স, ব্র্যাক ব্যাংক এবং অ্যাকটিভ ফাইন।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৩৩৪ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১৪ কোটি ৯২ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ২৪০ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৮৩টির, কমেছে ১২৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টির।