যুক্তরাষ্ট্র নিউইয়র্কের ওজনপার্কে বাংলাদেশী সুপার মার্কেট সহ ৫টি বাড়ীতে অগ্নিকান্ড আহত ১০, মিলিয়ন ডলারের বেশী সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত

110

কামরুজ্জামান (হেলাল) যুক্তরাষ্ট্র:

নিউইয়র্কের বাংলাদেশী অধুষ্যিত ওজনপার্কে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় বাংলাদেশী মালিকানাধীন সুপার মার্কেট সহ ৫টি বাড়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গত ৫ জানুয়ারী রোববার বেলা ১১টার দিকে আকস্মিকভাবেই এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ওজনপার্ক সুপার মার্কেট সহ দু’পাশের চারটি বাসা পুড়ে যায়। যদিও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার প্রাণপণ চেষ্টা করেছিল কিন্তু মুহূর্তের মধ্যেই তা চতুর্দিকে ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মিলিয়ন ডলারের বেশী সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এদিকে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ৪জনকে জ্যামাইকা হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।

তবে তাদের কারো আবস্থা আশংকাজনক নয় বলে এফডিএনওয়াই সূত্রে জানা গেছে। এছাড়াও ফায়ার সার্ভিসের ৫জন সামান্য আহত হয়েছে। তাদেরকেও একই হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। জানা গেছে, আকস্মিক এই আগুনে ওজনপার্ক সুপার মার্কেটটি পুড়ে ভস্মীভূত এবং এই সুপার মার্কেট সংলগ্ন ৫টি বসতবাড়ীসহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘটনার সময় প্রচন্ড বাতাস থাকায় দ্রুত আগুণ ছড়িয়ে পড়ে। দীর্ঘ ২২ বছর ধরে ব্যবসা করে আসা ওজনপার্ক সুপার মার্কেটের মালিক মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন জানান, গত ১১ বছর ধরে তিনি এই সুপার মার্কেটটি পরিচালনা করে আসছেন। দীর্ঘদিনের প্রাণপণ চেষ্টায় যখন লাভজনক অবস্থানে উপনীত হয়েছিল আমাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, তখনই আমাদের উপর আরোপিত হয় সেই আকস্মিক বিপদ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওজনপার্ক সুপার মার্কেটের পাশের ৯৭-১৭ লটের বাড়ীর কিচেন থেকে মূলত অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। এতে ওজন সুপারমার্কেট প্রায় পুরোটাই অগ্নিতে জ্বলে ভস্মীভূত হয়ে যায়। পাশাপাশি গ্রোসারীর উভয় পাশের ৫টি বাসাবাড়ী মারাত্ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘটনার পর ১০১ এভিনিউ ও তার পার্শ্ববর্তী কয়েকটি রাস্তা প্রায় চার ঘন্টা যান চলাচল একেবারে বন্ধ ছিল। কনকনে শীতে আকস্মিক আগুনের কারণে ওজনপার্কের অধিবাসীরা সবাই ছিল চরম আতঙ্কিত পাশাপাশি তাদের জীবনযাত্রাও স্থবির হয়ে পড়েছিল। মার্কেটটিতে আগুন লেগে প্রায় মিলিয়ন ডলারের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানান মালিকপক্ষ। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এগিয়ে এসে আগুন নেবানোর চেষ্টা করলে ততক্ষনে দোকানের ভিতর আগুন ছড়িয়ে পড়ে এবং সকল মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে ফায়ারম্যানদের সাহসী ভূমিকায় অন্যান্য বাসাবাড়িগুলো আগুন থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা পায়। দীর্ঘ প্রায় দুই ঘন্টা চেষ্টার পর আগুণ নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব হয়। অগ্নিকান্ডের কারণ উদঘাটনে তদন্ত চলছে। এদিকে ওজনপার্ক সুপার মার্কেটের কর্ণধার মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন জানান, ‘ইটস ভেরী ব্যাড’, ‘ইট উইল টেক এট লিস্ট ওয়ান টু টু ইয়ার্স টু গেট ব্যাক টু বিজনেস’। তার স্ত্রীর সহযোগিতায় তিনি মার্কেটটি পরিচালনা করে আসছিলেন। এছাড়াও তার তিন সন্তান তাদের সহযোগিতা করতো। বিগত ১১ বছর ধরে তিনি সুপার মার্কেটটি পরিচালনা করে আসছিলেন।