ই-জুডিশিয়ারি স্থাপন কেন নয় : হাইকোর্ট

3

সবুজ সিলেট ডেস্ক
দেশের সব আদালত ই-জুডিশিয়ারির আওতায় আনতে এবং ই-কোর্ট স্থাপনে কেন দ্রæত নির্দেশনা দেওয়া হবে না— তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।
এ সংক্রান্ত রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে গতকাল রোববার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। গত ১৩ জানুয়ারি রিট শুনানি শেষ হয়।
রিট আবেদনকারী আইনজীবী ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া বলেন, আদেশে আগামী ৯০ দিনের মধ্যে ই-জুডিশিয়ারি স্থাপন বিষয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আইন সচিব, তথ্য-প্রযুক্তি (আইসিটি) সচিব, মন্ত্রীপরিষদ সচিব, পরিকল্পনা সচিব এবং আইন কমিশনের চেয়ারম্যানসহ ৯ জনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
রিট আবেদনে বলা হয়, বিশ্বের অনেক দেশের আদালত ই-জুডিশিয়ারির আওতাভুক্ত। মামলা জটের কারণে বিচারপ্রার্থীর সময় ও সম্পদ (অর্থ) নষ্ট হচ্ছে যা সংবিধান পরিপন্থী।
ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া জানান, ই-জুডিশিয়ারি চালু হলে আদালতের আদেশ অল্প সময়ের মধ্যে প্রতিপালন করা সহজ হবে। ফলে জামিন আদেশ, সাজা পরোয়ানা মুহূর্তে দেশের সংশ্লিষ্ট জায়গায় পৌঁছে যাবে।